শনিবার, জুন ১৫, ২০২৪
Homeসম্পাদকীয়আসুন কর দিয়ে দেশকে স্বনির্ভর করি

আসুন কর দিয়ে দেশকে স্বনির্ভর করি

করবর্ষে কর দেওয়া একটি কল্যাণ রাষ্ট্রের নাগরিকদের প্রাথমিক শর্ত। যারা করযোগ্য তারা যদি সবাই কর দেয়, তাহলে রাষ্ট্রীয় খাতে রাজস্ব বাড়বে। সেই প্রেক্ষিত দেশের উন্নয়নে ব্যাপক সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। এ কথা আমরা দীর্ঘদিন ধরে শুনে থাকি। কার্যত সে ভূমিকা পালন করি না। তা ছাড়া রাষ্ট্রীয়ভাবে কর আদায়ের ছিল না কোনো তাগিদ অথবা প্রচার-প্রচারণা। বিগত দশ বছর ধরে এনবিআর করদাতাদের কর প্রদানের তাগিদ এবং প্রচারণাসহ আয়কর মেলার আয়োজন করছে। তাতে করে আয়কর দেওয়ার গণসচেতনতাও বৃদ্ধি পেয়েছে। করদাতার সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে। রাষ্ট্রীয় খাতে রাজস্বের পরিমাণও লক্ষ্যমাত্রার দিকে অগ্রসরমাণ।
রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে সপ্তাহব্যাপী মেলা চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত। করসেবা প্রদান ও কর সচেতনতা বাড়াতে দশ বছর যাবৎ দেশব্যাপী আয়কর মেলার আয়োজন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে সপ্তাহব্যাপী মেলা চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত। লক্ষ করা যাচ্ছে, প্রথমদিন থেকে মেলা প্রাঙ্গণে করদাতাদের উপচে পড়া ভিড়। স্বতঃস্ফূর্ত করদাতাদের যেন মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। যা আমাদের আশান্বিত করেছে। এবার রাজস্ব আয় বাড়বে।
দেশের সব জেলা শহরে চার দিন এবং ৪৮টি উপজেলায় দুই দিন মেলা হবে। পাশাপাশি উপজেলা পর্যায়ে ৮টি গ্রোথ সেন্টারে এক দিন ভ্রাম্যমাণ মেলা অনুষ্ঠিত হবে। এবারের মেলার স্লোগান, ‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’ এবং প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘কর প্রদানে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ, নিশ্চিত হোক
রূপকল্প বাস্তবায়ন’। প্রতিবছরের মতো করদাতাদের জন্য এবারের মেলায়ও আয়কর বিবরণীর ফরম দাখিল থেকে শুরু করে কর পরিশোধের জন্য ব্যাংক বুথের ব্যবস্থা রয়েছে। তাদের জন্য মেলায় সহায়তাকেন্দ্রে অপেক্ষা করছেন কর কর্মকর্তারা। একই জায়গায় সব সেবা মিলবে। করদাতাদের শুধু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে আনতে হবে। মেলায় ই-টিআইএন নিবন্ধন ও আয়কর বিবরণী গ্রহণ, কর পরিশোধ, আয়কর বিবরণী পূরণে সহায়তা এবং কর শিক্ষা প্রদানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা থাকছে। করদাতাদের সুবিধার্থে এবারের মেলায় কর সংক্রান্ত সব তথ্য সংবলিত একটি ওয়েবসাইট এবং কর পরিশোধে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করা হয়েছে। ওয়েবসাইট থেকে আয়কর বিবরণী ফরম ও চালান ফরম ডাউনলোড করার পাশাপাশি সব ধরনের গাইডলাইন পাওয়া যাবে। তাই করমেলার মতো অধিকাংশ সুবিধা ঘরে বসেই ভোগ করতে পারবেন করদাতারা। সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন, চলতি বর্ষে ৩০ লাখ আয়কর বিবরণী দাখিল হবে।
আমাদের দেশের সাধারণ মানুষের মধ্যে কর দেওয়া নিয়ে এক ধরনের ভীতি কাজ করত। আগে ভোগান্তিরও শেষ ছিল না। কর মেলা এবং পদ্ধতিগত সহজ হওয়াতে জনগণের মধ্যে সে শঙ্কা কমে গেছে। তা এবারের কর মেলায় উৎসাহী করদাতাদের অংশগ্রহণ দেখে আঁচ করা যাচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা বিষয়টিকে আরও সহজতর এবং ভোগান্তি কমিয়ে করদাতাদের উৎসাহী করবেন, এ প্রত্যাশা  নিউজ টাঙ্গাইল পরিবারের।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

- Advertisement -
- Advertisement -