বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৫, ২০২৪
Homeটাঙ্গাইল জেলাভূঞাপুরে শিক্ষক হত্যা: ১১ দিনেও গ্রেফতার হয়নি পলাতক আরও ২ আসামি

ভূঞাপুরে শিক্ষক হত্যা: ১১ দিনেও গ্রেফতার হয়নি পলাতক আরও ২ আসামি

নিজস্ব প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে মাদরাসা শিক্ষক আব্দুল হক মাস্টারকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনায় স্বামী-স্ত্রীসহ ৪ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করা হয়। তারমধ্যে ঘটনার দিন ৩ জনকে গ্রেফতার করা হলেও অভিযুক্ত আরও দুই আসামি এখনো পলাতক রয়েছেন।

অভিযুক্ত পলাতক আসামিরা হলেন- হক মাস্টারের প্রতিবেশি ছবুর ও জাকির।

সোমবার বিকালে ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আহসান উল্লাহ্ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নাজির উদ্দিন জানান, ‘ঘটনার ১১ দিন পেরিয়ে গেলেও অভিযুক্ত পলাতক আসামিরা এখনো গ্রেফতার হয়নি। তবে, পলাতক আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে।’

এ বিষয়ে ওসি আহসান উল্লাহ্ জানান, ‘অভিযুক্ত পলাতক আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারে আমাদের অভিযান চলমান রয়েছে। আশা করছি, অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে পলাতকদের দ্রুত গ্রেফতার করতে সক্ষম হব।’

এদিকে, গত সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন ভূঞাপুর উপজেলা শাখা’র উদ্যোগে ভূঞাপুরে ও ২১ ফেব্রুয়ারি সারপলশিয়া এলাকাবাসীর উদ্যোগে পাথাইলকান্দি বাজারে আসামিদের ফাঁসি এবং পলাতকদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি উপজেলার সারপলশিয়া গ্রামে শিক্ষক আব্দুল হক মাস্টার নিখোঁজ হন। ওই দিনরাতে কোনো এক সময়ে আসামি জাহানারার জাহানারা ওরফে জয়নব বেগম ও তার স্বামীসহ কয়েকজন মিলে শিক্ষক আব্দুল হককে হত্যা করে আসামি জাহানারার নিজ বাড়ির নিজ ঘরের সামনে বালুচাপা দিয়ে রাখে।

এরপর ১৬ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার বিকালে জাহানারার বাড়ি বালুর নিচ থেকে ওই শিক্ষকের মরদেহ উদ্ধার করে ভূঞাপুর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ওইরাতে শিক্ষককের স্ত্রী আয়েশা খাতুন বাদী হয়ে মামলা করেন। আসামিরা হলেন- জাহানারা ওরফে জয়নব বেগম, তার স্বামী আব্দুল বারেক, প্রতিবেশি ছবুর ও জাকির।

ক্যাপশন ও ছবি:
শিক্ষক আব্দুল হক মাস্টার ও ঘটনার দিন আসামিদের গ্রেফতার।

ফরমান শেখ-
জেলা প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল:
মোবাইল: ০১৯১০-৮৮২৪৩৩
তারিখ: ২৬-০২-২০২৪ ইং।টাঙ্গাইলে শিক্ষক হত্যা: ১১ দিনেও গ্রেফতার হয়নি পলাতক আরও ২ আসামি

ফরমান শেখ-
জেলা প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল:

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে মাদরাসা শিক্ষক আব্দুল হক মাস্টারকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনায় স্বামী-স্ত্রীসহ ৪ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করা হয়। তারমধ্যে ঘটনার দিন ৩ জনকে গ্রেফতার করা হলেও অভিযুক্ত আরও দুই আসামি এখনো পলাতক রয়েছেন।

অভিযুক্ত পলাতক আসামিরা হলেন- হক মাস্টারের প্রতিবেশি ছবুর ও জাকির।

সোমবার বিকালে ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আহসান উল্লাহ্ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নাজির উদ্দিন জানান, ‘ঘটনার ১১ দিন পেরিয়ে গেলেও অভিযুক্ত পলাতক আসামিরা এখনো গ্রেফতার হয়নি। তবে, পলাতক আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে।’

এ বিষয়ে ওসি আহসান উল্লাহ্ জানান, ‘অভিযুক্ত পলাতক আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারে আমাদের অভিযান চলমান রয়েছে। আশা করছি, অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে পলাতকদের দ্রুত গ্রেফতার করতে সক্ষম হব।’

এদিকে, গত সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন ভূঞাপুর উপজেলা শাখা’র উদ্যোগে ভূঞাপুরে ও ২১ ফেব্রুয়ারি সারপলশিয়া এলাকাবাসীর উদ্যোগে পাথাইলকান্দি বাজারে আসামিদের ফাঁসি এবং পলাতকদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি উপজেলার সারপলশিয়া গ্রামে শিক্ষক আব্দুল হক মাস্টার নিখোঁজ হন। ওই দিনরাতে কোনো এক সময়ে আসামি জাহানারার জাহানারা ওরফে জয়নব বেগম ও তার স্বামীসহ কয়েকজন মিলে শিক্ষক আব্দুল হককে হত্যা করে আসামি জাহানারার নিজ বাড়ির নিজ ঘরের সামনে বালুচাপা দিয়ে রাখে।

এরপর ১৬ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার বিকালে জাহানারার বাড়ি বালুর নিচ থেকে ওই শিক্ষকের মরদেহ উদ্ধার করে ভূঞাপুর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ওইরাতে শিক্ষককের স্ত্রী আয়েশা খাতুন বাদী হয়ে মামলা করেন। আসামিরা হলেন- জাহানারা ওরফে জয়নব বেগম, তার স্বামী আব্দুল বারেক, প্রতিবেশি ছবুর ও জাকির।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

- Advertisement -
- Advertisement -