মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪
Homeটাঙ্গাইল জেলামধুপুরমির্জাপুরে মাদরাসার উন্নয়নের নাম করে টাকা আদায়ের চেষ্টা; ধরা পড়লো প্রতারক

মির্জাপুরে মাদরাসার উন্নয়নের নাম করে টাকা আদায়ের চেষ্টা; ধরা পড়লো প্রতারক

নিজস্ব প্রতিনিধি : মানুষের সরল অনুভূতি ও ধর্মীয় বিশ্বাসকে পুঁজি করে মসজিদ মাদ্রাসার উন্নয়ন বা ভবন নির্মাণের কথা বলে টাকা আদায় করে রমরমা ব্যবসা চালিয়ে আসছে ধর্মীয় লেবাসধারী একটি প্রতারক চক্র। রমজান এলেই এই চক্রটি যেন আরও বেশি সক্রিয় হয়ে উঠে। মঙ্গলবার (৭ মে) টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আরজু আহমদ (৪৫) নামে প্রতারক চক্রের এক সদস্যকে ধরে ফেলে স্থানীয়জনতা।

আরজু টাঙ্গাইলের মধুুপুর উপজেলার দারুল কোরআন নূরানী ও হাফিজিয়া মাদরাসা নামে চাঁদা তুলতে এলে স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হয়। পরে ওই মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের মোবাইল নম্বর চাইলে প্রতারক আরজু একটি ভূল মোবাইল নম্বর দেয়। সন্দেহ হলে স্থানীয়রা তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করলে দ্রুত বেগে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এরপরই জনতার কাছে ধরা খেয়ে প্রকাশ পায় তার মসজিদ মাদ্রাসার নামে চাঁদাবাজির ব্যবসা।

দারুল কোরআন নূরানী ও হাফিজিয়া মাদরাসা নামে মধুপুর উপজেলার ঠিকানার কথা বলে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে এতোদিন রশিদ বইয়ের মাধ্যমে টাকা আদায় করে যাচ্ছিল বলে ওই প্রতারক আরজু জানায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ওই নামে মধুপুর সদরে কোন প্রতিষ্ঠানই নেই। পরে অবশ্য প্রতারক আরজুও এ কথা স্বীকার করে জানায়, বিগত ৩ বছর যাবৎ সে এই প্রতারনার ব্যবসা করে আসছে। সারা বছরের বিভিন্ন সময় টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহের বিভিন্ন উপজেলায় মাদরাসার নামে এই চাঁদা আদায় করে থাকে যা সম্পূর্ন ব্যক্তিগত জীবন নির্বাহে ব্যয় করে থাকে। পরে ক্ষুব্ধ জনতা তাকে পুলিশে দিতে চাইলে প্রতারক আরজু সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে বাকি জীবনে এধরনের কাজ করবে না বলে কথা দিলে স্থানীয়রা তাকে ছেড়ে দেয়।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

- Advertisement -
- Advertisement -