মঙ্গলবার, মার্চ ২১, ২০২৩
Homeআমাদের টাঙ্গাইলসখীপুরে আ.লীগে দ্বন্দ্ব , হাসছে বিএনপি 

সখীপুরে আ.লীগে দ্বন্দ্ব , হাসছে বিএনপি 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকাশ্য রূপ নিয়েছে। তিন পক্ষের নেতা-কর্মীরা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে সভা-সমাবেশ ডেকে পরস্পরের বিরুদ্ধাচরণে মেতে উঠেছেন। বর্তমানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক (শিকদার গ্রুপ ও জয় গ্রুপ) একীভূত হয়ে তৈরি হয়েছে একটি পক্ষ।

অপরদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগেরই একটি অংশের নেতা-কর্মীদের নিয়ে তৈরি হয়েছে স্থানীয় সংসদ সদস্যের অনুসারী আরেকটি পক্ষ, যা এমপি গ্রুপ হিসেবে পরিচিত। তাঁরা কখনো ব্যক্তিস্বার্থে, আবার কখনো প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে দলের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করে চলেছেন নিয়মিত।  দ্বন্দ্বের আগুনে ওই দুই পক্ষকে জ্বলতে থাকা দেখে স্থানীয় বিএনপি ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সমর্থকেরা এখন প্রকাশ্যেই হাসাহাসি করছেন। ফলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরাই আসন্ন সংসদ নির্বাচনে এই আসনে পরাজয়ের শঙ্কা প্রকাশ করছেন।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের উভয় পক্ষের একাধিক নেতা-কর্মীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে সখীপুরে আওয়ামী লীগের রাজনীতি সাবেক সংসদ সদস্য অনুপম শাহজাহান জয় ও উপজেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক শওকত শিকদারের নিয়ন্ত্রণে ছিল। তখন উপজেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতি বিভক্ত ছিল জয় গ্রুপ ও শিকদার গ্রুপে। কিন্তু ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম সখীপুর-বাসাইলের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে তাঁর সঙ্গে যোগ দেয় শিকদার গ্রুপ।

এরই মধ্যে ২০২১ সালের ১৯ ডিসেম্বর ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হন শওকত শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক হন সাবেক সাংসদ  অনুপম শাহজাহান জয়। এরপর বেশ কিছুদিন ভালোই চলছিল আওয়ামী লীগের সংসার। কিন্তু গত ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের সমর্থন নিয়ে বিরোধে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সঙ্গ ত্যাগ করে শওকত শিকদারের গ্রুপ। একীভূত হয়ে যায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত সিকদার গ্রুপ এবং সাধারণ সম্পাদক অনুপম শাহজাহান জয় গ্রুপ। স্থানীয় সংসদ সদস্যের সঙ্গে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদকের দ্বন্দ্ব চলে আসে প্রকাশ্যে।

এদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের এক বছর পেরিয়ে গেলেও দুই পক্ষের বিরোধের কারণে কমিটি পূর্ণাঙ্গ হচ্ছিল না। নানা আলোচনার পর গত ২৯ জানুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগ পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা প্রকাশ করে। কিন্তু তালিকা প্রকাশের পরপরই নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রত্যাখ্যান করে বিক্ষোভ মিছিল করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক সমর্থিত নেতা-কর্মীরা। মিছিল শেষে তাঁরা পৌর শহরের তালতলা চত্বরে টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করেন। নেতা-কর্মীরা দাবি করেন, অগঠনতান্ত্রিকভাবে ওই কমিটি গঠন করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। বর্তমানে ইউনিয়নে কর্মী সমাবেশের নামে দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালন করছে। একে অপরের বিরুদ্ধে বিষোদ্‌গার করা হচ্ছে।

কমিটি প্রত্যাখ্যান করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনুপম শাহজাহান জয় বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমন্বয় না করে নিজের ইচ্ছেমতো কমিটি করেছেন। কমিটি সংশোধনের জন্য নেতা-কর্মীরা কর্মসূচি দিলেও কেন্দ্রীয় নেতাদের আশ্বাসে পাঁচ দিনের জন্য তা স্থগিত করা হয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত শিকদার বলেন, গঠনতান্ত্রিকভাবে এ কমিটি গঠন করা হয়নি। ব্যক্তিস্বার্থে দলের ত্যাগী ও পরীক্ষিত অনেক নেতা-কর্মীকে পরিকল্পিতভাবে কমিটি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। কমিটিতে স্থান পাওয়া অনেকেই আগে বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন।

সদ্যঘোষিত পূর্ণাঙ্গ কমিটির সহসভাপতি ও যাদবপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান এ কে এম আতিকুর রহমান বলেন, পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর সভাপতি-সম্পাদকের সমর্থকেরা একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনে হামলা চালিয়ে নেতা-কর্মীদের লাঞ্ছিত করেছে। এ ছাড়া তারা সড়কে অগ্নিসংযোগ করে জনমনে আতঙ্কও তৈরি করেছে। এটা কোনোভাবেই সাংগঠনিক কার্যক্রমের অংশ হতে পারে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম  বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সমন্বয় করেই যোগ্য ও ত্যাগী নেতা-কর্মীদের নিয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। তারা এখন যেসব কর্মকাণ্ড করছে, তা দলীয় শৃঙ্খলাবিরোধী। ব্যক্তিগত প্রতিপক্ষ ভেবে তারা আমাকে ঘায়েল করতে চাচ্ছে।

দাড়িয়াপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি কবির হোসেন বলেন, আ. লীগ বিএনপির  ওপর মামলা হামলা করে আসছে। অথচ তারা নিজেরাই এখন দ্বন্দ্বে জড়িয়েছে। বিষয়টি আমাদের কাছে হাস্যকর বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

- Advertisement -
- Advertisement -