সোমবার, এপ্রিল ১৫, ২০২৪
Homeসখিপুরআমাদের সখীপুরসখীপুরে বাঘেরবাড়ী কাকড়াজান উচ্চ বিদ্যালয় ...প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে আবেদন

সখীপুরে বাঘেরবাড়ী কাকড়াজান উচ্চ বিদ্যালয় …প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে আবেদন

এম সাইফুল ইসলাম শাফলু : টাঙ্গাইলের সখীপুরে করোনাকালীন সময়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও প্রেসক্লাব বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন এলাকাবাসী। বুধবার সকালে বাঘেরবাড়ী কাকড়াজান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত চেয়ে গণস্বাক্ষরিত এ আবেদন করেন গ্রামবাসী। আবেদনে ওই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি এসএম আব্দুস সালাম উক্ত বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের ভুল বুঝিয়ে পূর্বের তারিখের রেজুলেশন খাতায় স্বাক্ষর নেন। তিনি আবেদনকৃত ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে তার আত্মীয় শোয়েব আল মামুনের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা উৎকোচ নিয়ে ব্যক্তিস্বার্থে করোনাকালীন সময়ে তরিঘরি করে এ নিয়োগ পরীক্ষা আগামী ১৩ জুন ধার্য্য করেন বলে অভিযোগ করা হয়।

এদিকে করোনাকালীন সময়ে এলাকাকে করোনা ঝুকিমুক্ত রাখতে এবং যোগ্য প্রার্থীকে প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ প্রদানের স্বার্থে উক্ত তারিখে ওই নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত চান এলাকাবাসী।

এলাকাবাসীর পক্ষে আবেদনকারী রফিকুল ইসলাম জানান, করোনা ভাইরাসে সারাদেশ যখন আতঙ্কগ্রস্থ, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মুহুত্বে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলে পরীক্ষার দিন স্থানীয় এবং বাইরের মানুষজন ভির করবেন। এতে স্থানীয় জনসাধারণ ব্যাপক করোনা ঝুকির মধ্যে পড়বেন। এছাড়াও ওই আবেদনে এলাকার একাধিক প্রার্থী থাকায় নিয়োগকালীন সময় সাংঘর্ষিক সম্ভাবনা এড়াতেই এ নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত জরুরী।

এ ব্যাপারে বাঘেরবাড়ী কাকড়াজান উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি এসএম আব্দুস সালাম তার বিরুদ্ধে আনিত প্রার্থীর কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, এ নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ নিয়োগ বোর্ডের সকল সদস্যতের মতামতের ভিত্তিতে নির্ধারন করা হয়েছে। আবার পরিবর্তন হলে তাদের মতামতেই পরিবর্তন হবে এতে আমার কোন আপত্তি নেই।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম বিদ্যুত লিখিত আবেদনের অনুলিপি হাতে পেয়েছেন স্বীকার করে ব্যক্তিস্বার্থের চেয়ে জনস¦ার্থের পক্ষে মতামত দেন তিনি।

লিখিত অভিযোগ হাতে পাওয়ার কথা স্বীকার করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসমাউল হুসনা লিজা বলেন, লিখিত অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জুলফিকার হায়দার কামাল লেবু বলেন, এলাকাবাসীর দাবির পক্ষে আমার অবস্থান। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে এ নিয়োগ পরীক্ষা নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

- Advertisement -
- Advertisement -