শনিবার, এপ্রিল ২০, ২০২৪
Homeজাতীয়সখীপুরে সবজি চাষে সফল লাইলী বেগম

সখীপুরে সবজি চাষে সফল লাইলী বেগম

এম সাইফুল ইসলাম শাফলুঃ স্ত্রী,সন্তান,নাতি-পুতি নিয়ে টানাপড়েনের সংসারের অভাব ঘুচাতে দিনমজুর স্বামী আবদুল গফুরকে বিদেশ পাঠাতে গিয়ে পাঁচ লাখ টাকা দালালের খপ্পরে পড়ে প্রায় পথেবসা অবস্থায় ওই পরিবার। ঋণের টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে সংসারটি আরো ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়ে। কথাগুলো বলছিলেন টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কীর্ত্তণখোলা গ্রামের কৃষাণি লাইলী বেগম (৪৫)। তিনি বলেন, ঋণের চাপে দুই চোখে যখন অন্ধকার দেখছিল তখন দিশকুল হারিয়ে স্থানীয় কৃষি অফিসের পরামর্শে নিজেদের জমিতে তিনি স্বামী আবদুল গফুরকে নিয়ে সবজি আবাদ শুরু করেন। এবছর তিনি এক বিঘা জমিতে বিষমুক্ত পদ্ধতি অবলম্ভন করে দেশীয় উন্নত জাতের শসা আবাদ করেছেন। শসার ফলন ভাল হওয়ায় এবং বিষমুক্ত শসার বাজারে ব্যাপক চাহিদা থাকায় ওই এক বিঘা জমি থেকে প্রায় এক লাখ টাকার শসা বিক্রি করেছেন তিনি । আরও এক লাখ টাকার শসা বিক্রি করতে পারবেন বলেও জানান ওই দম্পতি। এরই মধ্যে তাঁরা ঋণের কিস্তিও প্রায় পরিশোধ করে এনেছেন। স্বামীকে আর এখন পরের বাড়ী দিন মুজুরের কাজ করতে হয়না। সংসারের অভাব অনেকটাই ঘুচিয়েছে।
লাইলী বেগমের স্বামী আবদুল গফুর মিয়া বলেন, স্থানীয় কৃষি অফিস থেকে স্যারেরা এসে তাদের হাতে কলমে বিভিন্ন সময় শাক-সবজি চাষের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। কৃষি কর্মকর্তাদের পরামর্শ আর ওই প্রশিক্ষণে তাদেরকে শসা চাষাবাদে বিশেষ ভূমিকা রাখছে। শাক-সবজি আবাদ করে লাভবান হওয়ায় অনেক খুশি তিনি।

ওই এলাকার উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা ওবায়দুল হক খান বলেন, নিয়মিত তিনি কৃষাণি লাইলী বেগম ও তার স্বামীকে সঠিক পরামর্শ দিচ্ছেন।
উপ-সহকারি উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আনিছুুুুর রহমান বলেন, আইপিএম কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদন প্রকল্পের আওতায় কৃষাণি লাইলী বেগমের জমিতে শসা প্রদর্শনী করা হয়েছে। এতে জৈব কৃষি ও জৈবিক বালাইনাশক ব্যবহার করা হয়েছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফায়জুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, কৃষাণি লাইলীর জমিতে রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার করা হয়নি। সেক্সফেরোমন ফাঁদের মাধ্যমে পোঁকা দমনের ব্যবস্থা ছিল। ফলে ফলনও ভালো হয়েছে এবং জৈব কৃষি ও জৈবিক বালাইনাশক ব্যবহারে শসাতে কীটনাশকের কোনো ধরণের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকেনা। কৃষিতে লাইলী বেগম ও তার স্বামীর ব্যাপক আগ্রহ থাকায় তাদের সফলতা দ্রুত হবে বলেও তিনি আশাবাদী।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

- Advertisement -
- Advertisement -