সখীপুর পৌরসভায় জলাবদ্দ সড়কের ওপর ব্যক্তি উদ্যোগে বাঁশের সাঁকো

এম সাইফুল ইসলাম শাফলু :
টাঙ্গাইলের সখীপুর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে ইট দিয়ে তৈরি একটি সড়ক প্রায় দুই মাস ধরে পানিতে ডুবে আছে। ফলে ওই সড়কে যাতায়াতে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে শতাধিক পরিবারের লোকজন। দুর্ভোগ দেখেও পৌরসভার সংশ্লিষ্টরা এগিয়ে না আসায় ওই সড়কের ওপর দিয়ে পার হওয়ার জন্য জন্য ৩০ হাত লম্বা একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করে দিয়েছেন উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর তালুকদার। এ নিয়ে পৌরসভার মেয়রসহ সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনারের প্রতি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ওই ওয়ার্ডের ভুক্তভোগী বাসিন্দারা ।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সখীপুর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পশ্চিম পাশে ওই এলাকায় একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে যায়। নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় ওই সড়কে যাতায়াতে দীর্ঘদিন ধরেই দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন এলাকার বাসিন্দারা। একটু বৃষ্টি হলেই শতাধিক বাড়ি ঘরে পানি উঠে প্রায় তলিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়। অপরিকল্পিতভাবে বাসা-বাড়ি নির্মাণ ও দ্রুত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় এ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় বলে জানা গেছে। এতে করে ওই সড়কে বর্ষাকালে চলাচলে চরম দুর্ভোগে পড়ে এলাকাবাসী। বিশেষ করে স্কুলগামী শিক্ষার্থীরা বেশি দুর্ভোগে পড়ে।
ওই এলাকার একাধিক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সমস্যা নিয়ে আমরা এলাকা থেকে কয়েকবার পৌরসভায় গিয়ে কোন আশ্বাস না পাইনি। পরে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর তালুকদার আমাদের দুরাবস্থা দেখে আপাতত চলাচলের উপযোগী করে একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করে দিয়েছেন।
ওই এলাকার বাসিন্দা জোয়াহেরুল ইসলাম বলেন, বাজার থেকে একবস্তা চাউল বাসায় নিতে পারি না। ওই সড়কে কোনো ভ্যান-রিকশা চলার উপযোগী নেই। বাঁশের সাকোটির কারণে ভ্যান-রিক্সা না নিতে পারলেও জলাবদ্ব থেকে আপাতত ৩০-৪০ হাত জায়গা আমরা নিরাপদে পার হতে পারছি।
এ ব্যাপারে সখীপুর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জাহিদুল ইসলাম বলেন, অপরিকল্পিত বাসা-বাড়ি তৈরি হওয়ায় বাসা বাড়ির চেয়ে সড়ক নিচু হয়ে গেছে। ফলে সামান্য বৃষ্টির পানিতে সড়ক ডুবে যায়। ওই সড়কের পাশ দিয়ে শিগগিরই একটি ড্রেন নির্মাণ করা হবে। সাঁকো করে দেওয়ায় শতভাগ না হলেও অনেকটা উপকার হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেনে।
সখীপুর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর তালুকদার বলেন, পৌরবাসীর যেকোনো বিপদ- আপদে আমি পাশে আছি। এর আগেও নিজের টাকায় পৌরসভার বিভিন্ন ভাঙা রাস্তা-ঘাট সংস্কারসহ নানা উন্নোয়নমূলক কাজ করে দিয়েছেন বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.