ভূঞাপুরে কলেজ ছাত্রী অপহরণ, ছাত্রলীগ নেতা আটক

ভূঞাপুর প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইবরাহীম খাঁ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা ও তার সহযোগী বন্ধু মিলে দ্বাদশ শ্রেণির সুমাইয়া নামের এক ছাত্রীকে অপহরণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় গতকাল বুধবার (২আগস্ট) সকালে ওই ছাত্রীর মা খালেদা বেগম বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে ভূঞাপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন। পরে মামলার প্রধান আসামি ইয়ামিন ইসলাম ইমন (১৯) ও তার সহযোগী ইবরাহীম খাঁ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা হৃদয় মণ্ডলকে (২০) আটক করেছে পুলিশ।

মামলা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ইবরাহীম খাঁ সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়াকে গোপালপুর উপজেলার গোলিপেচা গ্রামের ওয়াজেদ আলীর ছেলে ইয়ামিন ইসলাম ইমন দীর্ঘদিন ধরে প্রেম নিবেদন ও বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এদিকে, সুমাইয়ার অন্যত্র বিয়ে পাকাপাকি হওয়ার খবর পেয়ে গত ৪ জুলাই ইমন, তার বন্ধু ছাব্বিশা গ্রামের কামরুজ্জামান মণ্ডল ওরফে কামুর ছেলে ও ছাত্রলীগ নেতা হৃদয় মণ্ডল ও অপর এক সহযোগীকে নিয়ে সুমাইয়াদের ভাড়া বাসায় যায়। তারা সুমাইয়ার মাকে বিয়ে বন্ধ করতে বলে এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। এরপর সন্ধ্যায় প্রতিদিনের ন্যায় সুমাইয়া কোচিংয়ের উদ্দেশে ফসলান্দিস্থ ভাড়া বাসা থেকে বের হয়ে প্রভাতী কিন্ডার গার্টেনের কাছে আসলে ইমন ও ছাত্রলীগ হৃদয় তাকে জোরপূর্বক সিএনজিতে তুলে নিয়ে যায়।

সুমাইয়ার স্বজনরা সারারাত তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। তারপর গত বুধবার সকালে সুমাইয়ার মা বাদী হয়ে ইমন, তার মা আছমিনা সুলতানা ও বন্ধু ছাত্রলীগ নেতা হৃদয় মণ্ডলকে আসামি করে ভূঞাপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ইমনও হৃদয়কে আটক করলেও সুমাইয়াকে উদ্ধার করতে পারেনি।

ভূঞাপুর থানার ওসি এ কে এম কাউসার চৌধুরী বলেন, মামলার প্রধান আসামি ইমন ও তার সহযোগী হৃদয়কে আটক করে কোর্ট হাজতে পাঠানো হয়েছে এবং সুমাইয়াকে উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.