ব্রেকিং নিউজ :

ঢাকার সঙ্গে উত্তরের ট্রেন সোমবার চালুর আশ্বাস

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক:

ঢাকার সঙ্গে দেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হতে ২৪ ঘণ্টার মতো সময় লাগবে। প্রবল স্রোতে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার পৌলী রেল সেতুর এপ্রোচ সড়কে প্রায় ফুট গর্তের সৃষ্টি হয়। এর ফলে রবিবার সকাল থেকে এই রুট ব্যবহার করা সব ধরনের ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

রেললাইন মেরামত করতে ২৪ ঘণ্টার মতো সময় লাগবে বলে বলে জানিয়েছেন রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী রমজান আলী। তিনি জানান, পানির তোড়ে কালীহাতির পৌলী সেতু এলাকায় রেললাইনের মাটি সরে যাওয়ায় সকাল ছয়টা থেকে ওই রুট ব্যবহার করা সব ট্রেনের চলাচল বন্ধ রয়েছে।

রমজান আলী জানান, ভাঙন রোধে নদীতে বালির বস্তা ফেলা হচ্ছে। এছাড়া রেলওয়ের ইঞ্জিনিয়ার ও কর্মীরা গর্তের মেরামত কাজ শুরু করেছে। লাইনটি পুরোপুরি মেরামত করতে ২৪ ঘণ্টার মতো সময় লাগবে। কাজ শেষ হলে সোমবার এই রুটে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে।

স্থানীয়রা জানান, সকালে রেল সেতুর এপ্রোচ সড়কের বিরাট একটি অংশের মাটি সরে গর্ত দেখতে পেয়ে তারা সেখানে লাল নিশানা টাঙ্গিয়ে দেন। নিশানা দেখতে পেয়ে নীলফামারীর চিলাহাটি থেকে আসা ঢাকাগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটির চালক ট্রেন থামিয়ে দিলে ভয়াবহ দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় কয়েক হাজার যাত্রী।

টাঙ্গাইলের ঘারিন্দা রেল স্টেশন মাস্টার মো. জালাল উদ্দিন জানান, ভোরে খুলনা থেকে ঢাকাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি কালিহাতি উপজেলার পৌলী রেল সেতু এলাকায় অতিক্রম করার পরই পৌলী রেল ব্রিজের ৩০ ফুট এলাকাজুড়ে এপ্রোচ অংশ ধসে যায়। বন্যার পানিতে মাটি নরম হওয়ায় এই ধসের সৃষ্টি হয়। এর ফলে ঢাকার সঙ্গে উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

এর ফলে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব স্টেশনে ঢাকাগামী রংপুর এক্সপ্রেস, বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী একতা এক্সপ্রেস এবং ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী ধূমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনগুলো জয়দেবপুর রেলস্টেশনে আটকা পড়ে আছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.