ব্রেকিং নিউজ :

কালিহাতীতে মন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে বাধ্যতামূলক লটারি বিক্রির অভিযোগ

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক :
টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার খিলদা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শত বছর পূর্তির অনুষ্ঠান সফল করতে চলছে অবৈধ লটারি বিক্রির মহোৎসব। আগামী ৩১ ডিসেম্বর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান এমপি’র। মন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে পুরো উপজেলার ১৭২ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে লটারি বিক্রি বাধ্যতামূলক করেছে আয়োজকরা। এই কাজে সহযোগিতা করার অভিযোগ উঠেছে কালিহাতী উপজেলা প্রশাসন ও শিক্ষা অফিসের বিরুদ্ধে।
কালিহাতী উপজেলার একাধিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় কোন বিদ্যালয়ে ২টি আবার কোন কোন বিদ্যালয়ে ৩টি করে লটারির বই দেয়া হয়েছে। প্রতিটি বইয়ে ১০০টি করে লটারির কুপন রয়েছে। প্রতিটি লাটারির দাম ২০ টাকা করে। সম্প্রতি উপজেলা শিক্ষা অফিসে শিক্ষকদের নিয়ে সভা করে প্রতিটি বিদ্যালয়ে এই লটারির বই বিতরণ করা হয়। সেইসাথে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে লটারি ক্রয়ে এক প্রকর বাধ্য করা হচ্ছে। এদিকে এ লটারি বিক্রিকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিবাবকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক শিক্ষক জানান, আমাদের উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে এই লটারি উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালেয়র শিক্ষক-শিক্ষিকাকে বিক্রির জন্য দেয়া হয়েছে। এই লটারি বিক্রির বিষয়ে শিক্ষার্থীদের চাপ দেওয়ায় শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির হার কমে গেছে। তাঁরা এ লটারি বিক্রির সাথে একমত নয় বলেও জানান।
এ বিষয়ে লটারি বিক্রি কমিটির আহ্বায়ক আবু বকর সিদ্দিকী বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাম্মৎ শাহীনা আক্তার ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার শামছুল আলমসহ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অনুমতি নিয়েই উপজেলার সকল বিদ্যালয়ে এই লটারি বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়েছে।
কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাম্মৎ শাহীনা আক্তার বলেন, এমপির মাধ্যমে জানতে পেরেছি মাননীয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এই অনুষ্ঠানে থাকবেন। তবে তিনি লটারি বিক্রির কোন অনুমতি দেইনি বলে জানান।
টাঙ্গাইল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল আজিজ বলেন, আমাকে খিলদা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে জানানো হয়েছে শত বছর পূর্তির অনুষ্ঠানে আমাদের মন্ত্রী মহোদয় আসবেন। তবে লটারি বিক্রির বিষয়টি তাঁর জানা নেই বলে জানান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.