ব্রেকিং নিউজ :

সখীপুরে দুই কলেজ ছাত্রীকে মারধর; শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ও লাঠি মিছিল

এম সাইফুল ইসলাম শাফলু : টাঙ্গাইলের সখীপুরে প্রকাশ্যে সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের দুই ছাত্রীকে মারধরের ঘটনায় বখাটেদের শাস্তির দাবিতে মানবববন্ধন ও লাঠি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা এ মানববন্ধন ও লাঠি মিছিল করে। স্থানীয় মুখতার ফোয়ারা চত্ত্বরে মানববন্ধন শেষে লাঠি মিছিলটি পৌর শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মানববন্ধনে সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ রেনুবর রহমান, বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ আব্দুল আলিম মিয়া প্রমুখ বক্তব্য দেন।

প্রসঙ্গত: গত বুধবার সন্ধ্যায় সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা ছাত্রী নিবাস থেকে হিসাববিজ্ঞান বিভাগ স্নাতক (সম্মান) তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী তাসলিমা সুলতানা স্বর্ণা এবং বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সুষ্মিতা অটোভ্যান যোগে সখীপুরে বাজারে আসার পথে রফিকরাজু ক্যাডেট স্কুলের সামনে পৌঁছালে মুখোশপড়া একদল বখাটে পূর্বপরিকল্পিতভাবে তাদের গতিরোধ করে। এ সময় ওই দুই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ভ্যান থেকে নামিয়ে রড দিয়ে এলোপাথারীভাবে পেটাতে থাকে। তাদের আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে বখাটেরা পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় ওই রাতেই কলেজ অধ্যক্ষ রেনুবর রহমান বাদী হয়ে মামলা করলে পুলিশ সখীপুর পৌর এলাকার ৫ নম্বর ওয়ার্ড়ের হজরত আলীর ছেলে ও লোকাল বয়েজ ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মনোয়ার হোসেন অন্তর (২২), ১নং ওয়ার্ডের লিয়াকত আলীর ছেলে সাকিব আল হাসান (১৯), একই ওয়ার্ড়ের সোহেল রানার ছেলে কাব্য (১৮),৪নং ওয়ার্ড়ের রফিকুল ইসলামের ছেলে সিয়াম হোসেন (১৮) এবং উপজেলার আড়াইপাড়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে জাহিদ হাসান আগুনকে(২০) গ্রেফতার করেন।

মামলার বাদী কলেজ অধ্যক্ষ রেনুবর রহমান বলেন, গ্রেফতারকৃত পাঁচ বখাটেকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তিনি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শামীমা আহমেদ রীনা বলেন, ‘ আহত ছাত্রীদের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকছুদুল আলম বলেন, ছাত্রীদের গতিরোধ করে মারধর, অপহরণ ও ধর্ষণের চেষ্টা পাঁচ যুবককে বুধবার রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে তাদের টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হয়েছে।

One comment

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.