ব্রেকিং নিউজ :

সখীপুরে দুই শিক্ষার্থী পেটানোর ঘটনায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের সখীপুরে দুই শিক্ষার্থী পেটানোর ঘটনায় সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা বৃহস্পতিবার ১১ টায় স্থানীয় মোখতার ফোয়ারা চত্ত্বরে গ্রেফতারকৃত বখাটেদের কঠোর শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ও লাঠি মিছিল করেছে।

আহতরা হলেন, ঐকলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগ স্নাতক (সম্মান) তৃতীয় বর্ষের তাসলিমা সুলতানা স্বর্ণা এবং বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের সুষ্মিতা। স্বর্ণা ভালুকা উপজেলার পাচগাঁও গ্রামের আবদুল হালিমের মেয়ে এবং সুষ্মিতার বাড়ি একই উপজেলার ডাকাতিয়া গ্রামে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যায় পৌর শহরের সখীপুর আবাসিক মহিলা কলেজের বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা ছাত্রী নিবাস থেকে অটোভ্যানযোগে সখীপুরে বাজারে আসার পথে রফিকরাজু ক্যাডেট স্কুলের সামনে পৌঁছালে মুখোশপড়া তিন বখাটে পূর্বপরিকল্পিতভাবে তাদের গতিরোধ করে। পরে ভ্যান থেকে তাদের জোরপূর্বক নামিয়ে রড দিয়ে পেটাতে থাকে। একপর্যায়ে ওই দুই ছাত্রী মাটিতে লুটিয়ে পড়লেও বখাটেরা তাদের পেটাতে থাকে। তাদের চিৎকারে স্থানীয় ফাহাদ ট্রেডার্সের মালিক আলী হোসেন তালুকদার এগিয়ে গেলে বখাটেরা তাকেও মারপিট করে। এক পর্যায়ে আশপাশের লোকজন এগিয়ে গেলে বখাটেরা পালিয়ে যায়।

আহত আলী হোসেন জানান, হঠাৎ দুই ছাত্রীকে পেটাতে দেখে আমি দৌড়ে এগিয়ে যাই। এ সময় বখাটেরা আমাকেও রড দিয়ে পেটায়।

ওই কলেজের অধ্যক্ষ রেনুবর রহমান বলেন, ‘এ বিষয়ে বুধবার রাতেই থানায় মামলা করা হয়েছে এবং পাঁচ বখাটেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শামীমা আহমেদ রীনা বলেন, ‘গুরুতর আহত একজনের শরীরে বেশ কিছু আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকছুদুল আলম বলেন, ‘হামলার ঘটনায় জড়িত পাঁচ যুবককে বুধবার রাতেই গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার সকালে টাঙ্গাইল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো পৌর এলাকার ৫ নম্বর ওয়ার্ড়ের হজরত আলীর ছেলে ও লোকাল বয়েজ ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মনোয়ার হোসেন অন্তর, ১নং ওয়ার্ড়ের লিয়াকত আলীর ছেলে সাকিব আল হাসান, ৪নং ওয়ার্ড়ের রফিকুল ইসলামের ছেলে সিয়াম হোসেন এবং ১নং ওয়ার্ড়ের সোহেলের ছেলে কাব্য, উপজেলার আড়াইপাড়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে জাহিদ হাসান আগু ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.