দেলদুয়ারে সরকারি বাসভবনে; বিনা ভাড়ায় দুই কর্মকর্তার বসবাস

 

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক : টাঙ্গাইলের দেলদোয়ারে অবসরপ্রাপ্ত উপজেলা পোস্টমাস্টার জহিরুল ইসলাম ও নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের নৈশ প্রহরী মোঃ মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে বিনা ভাড়ায় সরকারী বাসভবনে থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারী বিধি উপেক্ষা করে অবসরপ্রাপ্তরা কিভাবে সরকারী বাস ভবনে থাকছেন তার কোন সদোত্তর দিতে পারেনি ওই দুই কর্মচারী। জানা যায়, দেলদোয়ার উপজেলা পোস্টমাস্টার মো. জহিরুল ইসলাম গত ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর অবসরে চলে যান। ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি নতুন পোস্টমাস্টার সিরাজুল ইসলাম যোগদান করেন। জহিরুল ইসলাম অবসরে গেলেও গত দুই বছর যাবত বিনা ভাড়ায় সরকারী বাস ভবন দখল করে আছেন তিনি। নিজ বাড়ির আঙ্গিনার মত তিনি ওই বাসায় নানা ধরনের গাছ-গাছালি ও শাকসবজির আবাদও করছেন। অপরদিকে ২০০৩ সাল থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের নৈশ প্রহরী মোঃ মনিরুজ্জামান বিনা ভাড়ায় সরকারি বাসভবনে থাকছেন। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম ফেরদৌস আহমেদ নৈশ প্রহরী মোঃ মনিরুজ্জামান সরকারি বাসভবনে বছরের পর বছর বিনা ভাড়ায় আছেন জেনে দ্রুত বাসা ছেড়ে অন্যত্র থাকতে নোটিশ করেছেন বলে জানা গেছে। এছাড়াও স্থানীয় কিছু পেশাদার দালালদের সাথে হাত মিলিয়ে খাস জমি দখল, গাছ বিক্রয়, মিস-কেস মোকদ্দমা মীমাংসা, খেয়াল-খুশিমত ম্যানেজিং কমিটি গঠন, মাদক ব্যবসা থেকে শুরু করে নানা অফিসের দালালি করার একাধিক অভিযোগ পাওয়া গেছে মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত অবসরপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার জহিরুল ইসলাম তার মেয়ের পরীক্ষার শেষ হলেই সরকারি বাসভবন ছেড়ে দিবেন বলে জানান। বিনা ভাড়ায় কিভাবে আছেন কিভাবে জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি।

নৈশ প্রহরী মনিরুজ্জামানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাসা ছেড়ে দেওয়ার নোটিশ পেয়েছেন বলে জানান। তবে তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে সদ্য যোগদানকৃত উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম ফেরদৌস আহমেদ বলেন, সরকারী বাসভবন দখল করে থাকাদের বিরুদ্ধে নোটিশ করা হয়েছে।

 

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.