ব্রেকিং নিউজ :

‘শক্তিবর্ধক হালুয়া’ খেয়ে টাঙ্গাইলের ২ জনের মৃত্যু

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক : সাভারের আশুলিয়ায় ‘শক্তিবর্ধক হালুয়া’ খেয়ে বিষক্রিয়ায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় আরো দুই জন সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বৃহস্পতিবার (১৫ মার্চ) সকালে তাদের মৃত্যু হয়। এর আগে বুধবার (১৪ মার্চ) রাতে নিজেদের তৈরি হালুয়া খেয়ে চারজন অসুস্থ হয়ে পড়েন। নিহতরা হলেন- টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার ধুবলিয়া গ্রামের সুজাত আলীর ছেলে মোতালেব ও একই গ্রামের জয়নাল শেখের ছেলে জিল্লুর শেখ। আহতরা হলেন- শামীম ও ফরিদ উদ্দিন। তারা আশুলিয়ার রপ্তানি এলাকার হাসেম প্লাজার পেছনে একটি বাড়িতে বসবাস এবং ওই এলাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। প্রতিবেশী ও নিহতের স্বজনরা জানায়, বুধবার রাতে মোতালেবের ভাই নাসির বিভিন্ন জিনিস দিয়ে শক্তিবর্ধক হালুয়া তৈরি করে। পরে সে হালুয়া খেয়ে ওই চারজন অসুস্থ হয়ে পড়েন। এসময় স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। বৃহস্পতিবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোতালেব ও জিল্লুরের মৃত্যু হয়। শামীম ও ফরিদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপক বাবুল হোসেন বলেন, তারা বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন চিকিৎসকরা। শামীম ও ফরিদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ফলদা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য মজিবর রহমান বাংলানিউজকে জানান, বড় ভাই নাসিরের মাধ্যমে শামীম ও প্রতিবেশী জিল্লুর আশুলিয়ায় পোশাক কারখানায় চাকরি নেয়। তারা একই বাসায় ভাড়া থাকতেন। নাসির বুধবার রাতে হালুয়া তৈরি করে কাজে চলে যায়। পরে সে তৈরি করা হালুয়া খেয়ে মোতালেব, জিল্লুর, ফরিদ ও শামীম অসুস্থ হয়ে পড়েন।

বৃহস্পতিবার ভোরে মোতালেব ও জিল্লুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। শামীম ও ফরিদকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.