আওয়ামীলীগের ৩০০ আসনের প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত; ঢাকা-১৯ তৌহিদ জং মুরাদ ও ঢাকা-২০ বেনজীর আহমেদ

মোঃ মনির মন্ডল, নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভারঃ জাতীয় সংসদের প্রার্থী নির্বাচন প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে ইত্যমধ্যেই একটি খসড়া তালিকা প্রস্তুত করে ফেলেছেন প্রধানমন্ত্রী। একান্ত গোপন একটি জরিপ টিমের সঙ্গে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর প্রণীত মাঠভিত্তিক রিপোর্টের সমন্বয়ে এ প্রার্থী তালিকাটি তৈরি করা হয়েছে। যা এখনও পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডের সভায় উত্থাপিত হয়নি। এমনকি সংসদীয় বোর্ডের সদস্যরাও এখন পর্যন্ত প্রার্থী তালিকা সম্পর্কে অবগত নন। অচিরেই অনুমোদনের জন্য প্রার্থী তালিকাটটি উত্থাপন করা হবে বলে হাইকমান্ড সূত্র জানিয়েছে।
জাতীয় সংসদের প্রার্থী নির্বাচন প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবেই ওই খসড়া তালিকা প্রস্তুত করে ফেলেছেন তিনি। বিএনপি’র আসন্ন একাদশ নির্বাচনে অংশ নেয়া-না নেয়ার ওপর নির্ভর করছে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালিকার যোগবিয়োগের বিষয়টি। তবে এ মুহূর্তে হাইকমান্ড মনে করছেন, বিএনপি কোন অবস্থায়ই নির্বাচন বর্জন করবে না। বিএনপিকে মোকাবেলার দৃষ্টিভঙ্গিতে থেকেই প্রার্থিতা মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়েছে।

হাইকমান্ড সূত্র জানিয়েছে, প্রার্থী মনোনয়নে তিন’শটি আসনের কথা মাথায় রেখে অগ্রসর হলেও বর্তমান শরীকদের চিন্তার বাইরে রাখা হয়নি। সে ক্ষেত্রে শরীকদের বর্তমান আসনগুলোতে আওয়ামী লীগের নিজস্ব প্রার্থী রাখা হলেও এসব প্রার্থীকে প্রয়োজনে ছাড় দেবার মানসিকতায় প্রস্তুত থাকতে বলা হবে।

বর্তমান শরীক এরশাদের জাতীয় পাটি, আনোয়ার হোসেন মঞ্জু’র জেপি, হাসানুল হক ইনু’র জাসদ, রাশেদ খান মেননের ওয়ার্কার্স পার্টিসহ অন্যান্য ছোট দলের জন্য তাদের বর্তমান আসনগুলোতেই ছাড় দেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। এর বাইরেও মোজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সিপিবি, ‘৯৬-‘০১ শেখ হাসিনার ঐকমত্যের সরকারের নৌপরিবহন মন্ত্রী জাসদ সভাপতি আসম আব্দুর রবের জাসদ, বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকীর কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সঙ্গেও একটি নির্বাচনী আঁতাত করার চিন্তাভাবনার কথা জানা গেছে। জামায়াতের সঙ্গে বিএনপি’র নির্বাচন প্রত্যক্ষ ন, পরোক্ষ হবে, সেদিকে দৃষ্টি রেখে যাবতীয় নির্বাচনী কুটকৌশল গ্রহণ করছে আওয়ামী লীগ।

গোয়েন্দা সূত্রগুলো সরকারকে বিএনপির নির্বাচনমুখী পরোক্ষ তৎপরতা সম্পর্কেও সজাগ রাখছে বলে জানা যায়। সরকারের হাইকমান্ড গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর থেকে প্রাপ্ত ভিন্ন ভিন্ন রিপোর্টের চুলচেরা যাচাইবাছাইপূর্বক খসড়া প্রার্থী তালিকাটি প্রস্তুত করা হয়েছে বলে দাবি করেছে এ ঘনিষ্ঠ সূত্রটি।

নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হলে দলের সংসদীয় বোর্ড সর্বশেষ সামান্য সংযোজন বিশোজনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে তালিকাটি অনুমোদন করা হবে। হাইকমান্ডের তত্ত্বাবধানে থাকা তিন’শ আসনের এ প্রার্থী তালিকায় যাদের নাম উঠে এসেছে, তাদের নাম বিভাগভিত্তিক নিম্নে বর্ণিতহলোঃ

পঞ্চগড়-১ সাবেক এমপি মজহারুল হক প্রধান, পঞ্চগড়-২ নূরুল ইসলাম সুজন এমপি।

ঠাকুরগাঁও-১ সাবেক মন্ত্রি রমেশ চন্দ্র সেন, ঠাকুরগাঁও -২ দবিরুল ইসলাম এমপি, ঠাকুরগাঁও-৩।

দিনাজপুর-১ মনোরঞ্জণ শীল গোপাল এমপি, দিনাজপুর-২ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুূদ চৌধুরী এমপি, দিনাজপুর-৩ জাতীয় সংসদের হুইপ এম ইকবালুর রহিম এমপি, দিনাজপুর-৪ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি, দিনাজপুর-৫ প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি ও দিনাজপুর-৬ শিবলী সাদিক এমপি।

নীলফামারী-১ আফতাবউদ্দিন সরকার এমপি, নীলফামারী-২ সংস্কৃতি মন্ত্রি আসাদুজ্জামান নূর, নীলফামারী-৩ অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা এমপি নীলফামারী-৪ আমেনা কোহিনুর আলম।

লালমনিরহাট-১ আসনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন এমপি, লালমনিরহাট-২ প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি, লালমনিরহাট-৩ আবু সালেহ সাইদ দুলাল।

রংপুর-১ আসনে। রংপুর-২ আসনে আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক এমপি, রংপুর-৩ আসনে আনোয়ারুল ইসলাম, রংপুর-৪ আসনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা টিপু মন্সী এমপি, রংপুর-৫ আসনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী এইচ এন আশিকিুর রহমান এমপি,
রংপুর-৬ আসনে প্রধানমন্ত্রীর পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়।

কুড়িগ্রাম-১ আসনে, কুড়িগ্রাম-২ জাফর আলী, কুড়িগ্রাম-৩ শওকত আলী বীরবিক্রম, কুড়িগ্রাম-৪ জাকির হোসেন।

গাইবান্ধা -১ আসনে গোলাম মোস্তফা আহমেদ, গাইবান্ধা-২ আসনে সৈয়দ শামস উল আলম হীরা, গাইবান্ধা-৩ আসনে ডাঃ ইউনুস আলী সরকার, গাইবান্ধা-৪ আসনে আবুল কালাম আজাদ ও গাইবান্ধা-৫ আসনে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হোসেন রিপন।

জয়পুরহাট-১, জয়পুরহাট-২ আসনে আবু সাইদ আল মাহমুূদ স্বপন এমপি।

রাজশাহী-১ আসনে মতিউর রহমান, রাজশাহী-২ আসনে আব্দুল খালেক, রাজশাহী-৩ আসনে আয়েন উদ্দীন, রাজশাহী-৪ আসনে এনামুল হক, রাজশাহী-৫ আসনে এম এ ওয়াদুদ দারা ও রাজশাহী-৬ আসনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

নাটোর-১ আসনে আবুল কালাম, নাটোর-২ আসনে শফিকুল ইসলাম শিমুল, নাটোর-৩ আসনে জুনায়েদ আহম্মেদ পলক।

“পাবনা”
পাবনা-১ আসনে সাবেক এমপি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, পাবনা-২ আসনে আজিজুল হক আরজু এমপি, পাবনা-৩ আসনে মকবুল হোসেন এমপি, পাবনা-৫ গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি।

নওগাঁ-১ আসনে সাধন চন্দ্র মজুমদার, নওগাঁ-২ আসনে শহীদুজ্জামান সরকার, নওগাঁ-৩ আসনে সলিম উদ্দিন, নওগাঁ-৪ আসনে মন্ত্রী ইমাজ উদ্দীন প্রামাণিক, নওগাঁ-৫ আসনে ব্যারিস্টার নিজামউদ্দীন জলিল জন ও
নওগাঁ-৬ আসনে মোঃ ইসরাফিল আলম এমপি।

সিরাজগঞ্জ-১ আসনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, সিরাজগঞ্জ-২ আসনে হাবিবে মিল্লাত, সিরাজগঞ্জ-৩, সিরাজগঞ্জ-৪ আসনে তানভীর ইমাম, সিরাজগঞ্জ-৫ আসনে আব্দুল মজিদ মন্ডল এমপি, সিরাজগঞ্জ-৬ আসনে হাসিবুর রহমান স্বপন এমপি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনে গোলাম রাব্বানী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ সাবেক এমপি জিয়াউর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আব্দুল ওয়াদুদ বিশ্বাস

ঢাকা বিভাগ : মোট আসন ৭০টি

ঢাকা-১ সাবেক প্রতিমন্ত্রি আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল মান্নান খান, ঢাকা-২ আসনে কোরানীগঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ (এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য খাদ্যমন্ত্রি কামরুল ইসলাম), ঢাকা

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.