টাঙ্গাইলে এক রশিতে স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে একই রশিতে ঝুলে স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। শনিবার রাতে উপজেলার বগা (মধ্যপাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রবিবার সকালে পুলিশ তাদের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে। নিহতরা হলো বগা (মধ্যপাড়া) গ্রামের নূরু কাজীর ছেলে তারা কাজী (২৭) ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার গোয়ালপাড়া গ্রামের খাজা মিয়ার মেয়ে খাদিজা খাতুন (২৪)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, তারা কাজী ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করার সময় প্রথম স্ত্রী রেখে ৩ মাস আগে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। দ্বিতীয় বিয়ে করায় প্রথম স্ত্রী লুচিয়া মামুদপুর গ্রামের জোয়াহের আলীর মেয়ে সুমাইয়া বেগম আদালতে মামলা করেন। দ্বিতীয় স্ত্রী খাদিজাকে নিয়ে ঢাকায় চলে গিয়েছিল। তারা কাজী ঢাকা থেকে বাড়ি আসলে পরিবারের সবাই দ্বিতীয় স্ত্রীকে ছেড়ে দিতে বলে। কিন্তু রাতেই বাড়ির পাশে আমগাছে দুইজন ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করে। তারা কাজীর প্রথম স্ত্রী সুমাইয়া বেগম জানান, আমার সাথে ওর কোনো দ্বন্দ্ব ছিলো না। ৩ দিনের মেয়ে তামান্নাকে রেখে সে ঢাকায় বিয়ে করেছে। আমি আমার বাবার বাড়িতেই থাকি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য (সংরক্ষিত) রুবি আক্তার জানান, তারা কাজীর পরিবার আমার কাছে এসে বলেছিল যে তিনি দ্বিতীয় স্ত্রীকে ছেড়ে দেবে। শনিবার ইফতারের পর বসার কথা ছিল, কিন্তু পরে শুনলাম দ্বিতীয় স্ত্রীকে ঢাকায় পৌঁছে দিতে ঘাটাইল গিয়েছে।স্থানীয় ইউপি সদস্য হেলালুর রহমান জানান, দ্বিতীয় স্ত্রীকে ছাড়তে পারবে না বলে হয়তো আবেগে আত্মহত্যা করেছে। সংগ্রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রহিম মিয়া জানান, প্রেম ঘটিত কারণে হয়তো দু’জন মিলে একসাথে আত্মহত্যা করেছে।

ঘাটাইল থানার ওসি আশরাফুল ইসলাম জানান, দ্বিতীয় স্ত্রীকে ছাড়তে পারবে না বলে হয়তো আবেগে আত্মহত্যা করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.