সখীপুরে ছাত্রলীগ সভাপতির নামে ভাঙচুর লুটপাটের অভিযোগে মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কাকড়াজান ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ফরিদুজ্জামানের নেতৃত্বে দুটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও একটি ক্লাবঘর ভাঙচুর, হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার রাতে উপজেলার কাকড়াজান ইউনিয়নের ভূয়াইদ বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে ওই রাতেই আবদুল মান্নান শিকদার বাদী হয়ে ছাত্রলীগ নেতা ফরিদুজ্জামানসহ ১২ জনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ করেছেন।

পুলিশ ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভূয়াইদ বাজারে ‘আদানি ভূয়াইদ সবুজসেনা স্মৃতি সংঘে’র জমি নিয়ে ক্লাবের সদস্যদের সঙ্গে প্রতিপক্ষের বিরোধ চলছিল। প্রতিপক্ষের লোকেরা স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ওই ক্লাবের সভাপতি আবদুল মান্নান শিকদারকে বিভিন্ন সময় হুমকি দিয়ে আসছিল। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে কয়েকদিন আগে আবদুল মান্নান শিকদার টাঙ্গাইল আদালতে মামলা করে। এ খবরে ক্ষিপ্ত হয়ে বুধবার রাতে মান্নানের দুই সহোদর ভূয়াইদ বাজার বণিক সমিতির সভাপতি বারেক শিকদার ও শফিক শিকদারের দোকানে ছাত্রলীগ নেতা ফরিদুজ্জামানের নেতৃত্বে ১০/১২ জন মিলে হামলা চালায়। এ সময় নির্মাণাধীন ক্লাবঘরটিও ভাঙচুর করা হয়। হামলায় বণিক সমিতির সভাপতি বারেক শিকদার, ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক স্কুল শিক্ষক মোহাম্দ আলী ও ক্লাব সদস্য লাবু মিয়া আহত হলে তাদের সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

আবদুল মান্নান শিকদার বলেন, ‘আমার ভাইয়েদের দোকান ও ক্লাব ভাঙচুর, লুটপাটের হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতা ফরিদুজ্জামান কাকড়াজান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম বিদ্যুতের ভাগ্নে। অন্যরা চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনী। তারা দোকানের টাকা ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।’

অভিযুক্ত ছাত্রলীগের সভাপতি ফরিদুজ্জামান বলেন, ‘আমি ঘটনার সঙ্গে জড়িত নই। তবে হামলা ও ভাঙচুর ফেরানোর চেষ্টা করেছি।’

সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম তুহীন আলী বলেন, ‘ঘটনাস্থলে রাতেই পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.