ব্রেকিং নিউজ :

সখীপুরে মার্কেটগুলোতে প্রচন্ড ভিড়, ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত

সজল আহমেদঃ পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে সখীপুরের মার্কেটগুলোতে কেনাকাটা জমে উঠেছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত সখীপুরের মার্কেটগুলো ক্রেতাদের পদচারণায় মুখরিত থাকছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, রমজানের প্রথম সপ্তাহে মার্কেটে ক্রেতাদের ভিড় কম হলেও গত কয়েক দিন ধরে মার্কেটগুলোতে ক্রেতাদের ব্যাপক ভিড় দেখা যাচ্ছে। সাধ ও সাধ্যের মধ্যে ঈদের নতুন পোশাকের জন্য ক্রেতারা ছুটছেন কাপড় ও তৈরি পোশাকের মার্কেটসহ বিভিন্ন দোকানে। বিভিন্ন মার্কেট ও দোকান ঘুরে সাধ্যের মধ্যে পছন্দের জিনিসটি কিনছেন ক্রেতারা।

রবিবার পৌরশহরের শহরের ফাহিম সুপার মার্কেট, শিউলি সুপার মার্কেট, শামীম টাওয়ার, পোড়া মার্কেট, মোবাইল মার্কেট, খান মার্কেট ঘুরে সর্বত্র ক্রেতাদের ভিড় দেখা যায়। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত এবং ইফতারির পরে শহরের মার্কেটগুলোতে আরও বেশি ভিড় পরিলক্ষিত হচ্ছে। গভীর রাত পর্যন্ত ক্রেতারা কেনাকাটা করছেন।

আলাপে বিক্রেতারা বলেন, সকাল ১০টা থেকে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত প্রচুর লোকের সমাগম হচ্ছে মার্কেটগুলোতে। ক্রেতারা নিজের পছন্দ অনুযায়ী শাড়ি, থ্রি-পিস ও ছিট, শার্ট ও প্যান্ট, জুতা, স্যান্ডেল, পাঞ্জাবিসহ অন্যান্য জিনিস কিনছেন।

এদিকে ক্রেতারা জানান, এবার প্রত্যেকটি কাপড়ের দাম একটু বেশি ধরা হচ্ছে। দাম অনুযায়ী কাপড় বা পোশাকের মান তেমন নয় বলেও অভিযোগ করেন ক্রেতারা।

পোড়া মার্কেটে কাপড় কিনতে আসা রাহিমা বেগম বলেন, গত বছর ঈদের আগে যে পোশাক হাজার টাকায় কিনেছি, এবার সেই একই মানের পোশাকের দাম ৫শ টাকা বাড়িয়ে ১৫শ টাকা রাখাহচ্ছে। কোন কোন কাপড়ের ক্ষেত্রে আবার দ্বি-গুণ দাম ধরা হচ্ছে।

আরেক নারী শামিমা বলেন, বছর ঘুরে আবার সামনে আসছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদের আনন্দ সবার মাঝে ভাগাভাগি করে নিতে আগেভাগেই পরিবারের সবার জন্য নতুন কাপড় কিনতে এসেছেন। যাতে সবার সাথে ঈদ ভাল কাটাতে পারেন। তিনিও বেশি দাম নেয়ার অভিযোগ তোলেন ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে।

শামীম টাওয়ারের ব্যবসায়ীরা দাম বেশি নেয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, বেশি দাম নেয়ার কোন সুযোগ নেই। এটা আমাদের ব্যবসা। তবে কিছু কাপড়ের দাম বেড়ে গেছে। যেটা পাইকারি বাজারে বেশি দামে কিনতে হয় সেটা খুচরা বাজারেও বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। রমজানের শুরুতে বেচাকেনা খুব একটা না হলেও কয়েকদিন ধরে বেচাকেনা ভাল হচ্ছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.