ব্রেকিং নিউজ :

হ্যাকারদের থেকে স্মার্টফোন বাঁচানোর উপায়

মাসুদ সাহেব হঠাৎ করেই ফেসবুকে ডুকেই দেখতে পেলেন অনাকাঙ্খিত পোষ্ট এবং ছবি। যা তার ফেসবুক ওয়ালে শেয়ার করা। কিন্তু এ কাজতো তিনি করেননি। তাহলে কি করে হল ? হ্যাকড !

হ্যাঁ এভাবেই হ্যাকড হয় আপনার স্বাধের স্মার্টফোনটি। আজকে আমরা জানবো কীভাবে এই ধরনের চুরি বা হ্যাকিং থেকে আপনি বাঁচতে পারবেন।

বর্তমানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে হ্যাকাররা টার্গেট হয় অ্যান্ড্রয়েড ফোন। তবে কয়েকটা নিয়ম মেনে চললে অ্যান্ড্রয়েড ফোন হ্যাক হওয়া থেকে আটকাতে পারবেন।

কী হবে আপনার ফোন হ্যাক হলে?

প্রথমত, চুরি যাবে আপনার ব্যক্তিগত ডেটা এবং দ্বীতিয়ত, ব্যাংকের তথ্য চলে যাবে হ্যাকারদের হাতে

যা করবেন যা করবেননা:

ফোনে পাসওয়ার্ড সেভ করবেন না

বিভিন্ন অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড মনে রাখতে অনেকে ফোনে পাসওয়ার্ড সেভ করে রাখেন। এর থেকেই হয় বিপত্তি। ফোনে ম্যালওয়্যার অ্যাটাকের ফলে হ্যাক হতে পারে আপনার পাসওয়ার্ড।

অ্যান্ড্রয়েডের নিজস্ব সিকিউরিটি ব্যবহার করুন

অন্ড্রয়েডে বিল্ড ইন সিকিউরিটি সিস্টেম আছে। অর্থাৎ প্রতিটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনে নিজস্ব সিকিউরিটি সিস্টেম আছে। সেটি ব্যবহার করুন। ফোনের নিজস্ব পিন, প্যাটার্ন, পাসওয়ার্ড পরিষেবা ব্যবহার করুন। অন্য কোনও অ্যাপ ব্যবহার করবেন না ফোন লক করার জন্য।

প্লেস্টোর ছাড়া অন্য কোথাও থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করবেন না

প্লেস্টোর থেকেই অ্যাপ ডাউনলোড করুন। কোনও থার্ড পার্টি সোর্স থেকে ডাউনলোড করবেন না। অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় থার্ডপার্টি সোর্স থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করলে তা সাইজ়ে কম হয়। ফলে স্পেস বাঁচাতে অনেকেই সেসব জায়গা থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করে থাকেন। প্লেস্টোর থেকেই অ্যাপ ডাউনলোড করুন।

ডেটা এনক্রিপ্ট করুন

সব ফোনের সিকিউরিটিতে এনক্রিপশন অপশন থাকে। ফোনের ডেটা এনক্রিপ্ট করুন। এতে আপনার ফোনের তথ্যর আলাদা সিকিউরিটি আসবে।

সফটওয়্যার আপডেট করুন

ফোন আপডেটেড রাখুন। কয়েকদিন অন্তর ফোনের আপডেট চেক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.