ব্রেকিং নিউজ
News Tangail

টাঙ্গাইলে ঝিনাই নদীতে বালু উত্তোলন; হুমকিতে ফসলি জমি

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের ঘাটাইলের হাটকয়েড়া এলাকায় ঝিনাই নদী থেকে পাঁচটি অবৈধ ড্রেজার দিয়ে প্রায় ছয় মাস ধরে চলছে বালু উত্তোলন। উপজেলা ভূমি অফিসের লিখিত কোনো অনুমতি না নিয়ে স্থানীয় কতিপয় জনপ্রতিনিধি ও প্রভাবশালীরা এ বালু উত্তোলন করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

ফলে ইতোমধ্যে বেশকয়েকটি বসতভিটা, ফসলি জমি ও একটি গাইড বাঁধ নদী গর্ভে চলে গেছে। উপজেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন করেও এর কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না এলাকাবাসী।
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার আনেহলা ইউনিয়নের হাটকয়েড়া এলাকার ঝিনাই নদী থেকে ভূমি অফিসের মৌখিক অনুমতি নিয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাজাহান তালুকদার ও ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান ৫টি অবৈধ বাংলা ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছেন। সপ্তাহ খানেক ধরে ৩টি ড্রেজার বন্ধ থাকলেও রাতদিন চলছে ২টি বাংলা ড্রেজার। যেখানে বাংলা ড্রেজার বসানো হয়েছে তার ঠিক ৫০ মিটার দূরেই নতুন একটি ব্রিজের কাজ চলছে। এতে হুমকিতে পড়েছে ওই ব্রিজটি। এছাড়াও অবৈধ বালু উত্তোলনের ফলে ইতোমধ্যে বেশকয়েকটি বসতভিটা, ফসলি জমি ও একটি গাইড বাঁধ নদী গর্ভে চলে গেছে। হুমকির মুখে পড়েছে শত শত একর ফসলি জমি ও বসতভিটা।
এদিকে, স্থানীয় মহির উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি উপজেলা প্রশাসন বরাবর লিখিত অভিযোগ দিলেও এর কোনো প্রতিকার হয়নি। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আম্বিয়া খাতুন পরিদর্শনে এসে অবৈধ বাংলা ড্রেজার উচ্ছেদ না করে উল্টো বালু উত্তোলনের জন্য বাংলা ড্রেজারের স্থান নির্র্ধারণ করে দিয়ে গেছেন।
স্থানীয় বায়েজিদ তালুকদার জানান, অবৈধ বাংলা ড্রেজার বসানোর পর উপজেলা প্রশাসন বরাবর লিখিত অভিযোগ দিলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আম্মিয়া খাতুন এসে পরিদর্শন করে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। তারপর আরও বেশি ড্রেজার বসানো হয়। আবারো লিখিত অভিযোগ করি আমরা। তিনি আবারো এসে প্রকাশ্যে বালু উত্তোলন করার অনুমতি দিয়ে যান। যেখানে সারাদেশে বাংলা ড্রেজার নিষিদ্ধ, সেখানে তিনি কিভাবে ড্রেজার চালানোর অনুমতি দেয়।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.