ব্রেকিং নিউজ
News Tangail

যে কারণে বাংলাদেশি পর্যটকদের ভিসা দিতে আগ্রহী ভারত

ভারতের পর্যটন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পর্যটক হিসেবে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক বাংলাদেশি ভারত ভ্রমণ করেন। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এরপর রয়েছেন যুক্তরাজ্য, শ্রীলঙ্কা, কানাডা, জার্মানি, অষ্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স এবং রাশিয়ার পর্যটকরা।

ভারতীয় এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে , ২০১৭ সালের অক্টোবরে ভারত ভ্রমণ করেছেন ৮ লাখেরও বেশি পর্যটক। যা ২০১৬ সালের একই সময়ের তুলনায় ১৮.১ শতাংশ বেশি। ২০১২ সালে ভারতে বাংলাদেশি পর্যটক গেছেন মাত্র ৪ লাখ ৮০ হাজার, যা ২০১৬ সালে এসে প্রায় তিনগুণ বেড়েছে। ২০১৬ সালে বাংলাদেশের মোট পর্যটকের প্রায় সাড়ে ১৫ শতাংশই ভারত ভ্রমণে গেছেন। এছাড়া, ২০১৫ সালে মোট এক লাখ ৩৪ হাজার ৩৪৪ জনকে চিকিৎসা ভিসা দিয়েছে ভারত, যার অর্ধেকই ছিলেন বাংলাদেশি। ২০১৬ সালে এই সংখ্যা আরো বেড়েছে। পর্যটন খাতে ২০১৬ সালে ভারতের আয় হয়েছে প্রায় ২ হাজার ৩০০ কোটি ডলার, যা ২০১৫ সালের চেয়ে ৯ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি।

সম্পতি ভারতের পর্যটনমন্ত্রীও স্বীকার করেছেন, গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, “বাংলাদেশিরা কেনাকাটা ও চিকিৎসা সেবায় অন্য যেকোনো দেশের পর্যটকদের চেয়ে বেশি অর্থ খরচ করেন। এ কারণেই আমরা চাই বাংলাদেশ থেকে বেশি পরিমাণে পর্যটক ভারত ভ্রমণে আসুক।

বাংলাদেশে ভারতীয় হাই কমিশন সূত্রও জানায়, এখন বিশ্বের যে কোনো ভারতীয় মিশনের চেয়ে বেশি ভিসা ইস্যু হয় বাংলাদেশ মিশন থেকে। প্রতি বছরই ১৬ থেকে ১৭ লাখ বাংলাদেশি ভারত যাচ্ছেন।

বাংলাদেশি পর্যটকদের ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করতে গত ১৪ জুলাই (শনিবার) রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কে নতুন ভিসা সেন্টারের উদ্বোধন করেছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। যা বিশ্বে দেশটির ভিসা কেন্দ্রগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড়। এর ফলে বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া আরো সহজতর হবে বলে মনে করছেন ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.