News Tangail

দম্পতিদের অসুখী হবার অন্তরালে রয়েছে যে ৭টি কারণ

যৌন জীবনে অসন্তুষ্টি বা অসুখী হবার বিষয়টি যে আসলে কত বড়, এটা সম্পর্কে অনেকেরই ধারণা নেই। যৌন জীবনে অতৃপ্তি বিবাহিত জীবনকে রীতিমত বিষিয়ে তোলে। অনেক দম্পতিদের মাঝেই ক্রমাগত ঝগড়া আর দূরত্বের একমাত্র কারণ হচ্ছে যৌন জীবনে অসুখী হওয়া। কারো কারো ক্ষেত্রে এই দূরত্ব থেকে বিষয়টা ডিভোর্স পর্যন্ত গড়ায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দম্পতিরা নিজেদের মাঝে যৌনতা বিষয়ে অসুখী হবার কারণগুলো ঠিক বুঝতে পারেন না। আর সেটা পারেন না বলেই সমাধানও বের করতে পারেন না। একটু খানি সমঝোতার অভাবে সম্পর্কে চলে আসে ভাঙন ও দূরত্ব। চলুন, জেনে নিই দম্পতিদের যৌন জীবনে অসুখী হবার নেপথ্যে ৭টি কারণ।

১) বলাই বাহুল্য যে যৌন সম্পর্ক কোন এক তরফা বিষয় নয়। দুটি মানুষেরই সমান সম্মতি, আগ্রহ ও আন্তরিকতার একটি বিষয় থাকে। আর সবার আগে জরুরী পরস্পরের সাথে মনের মিল হওয়া। বেশির ভাগ দম্পতিই “বিয়ে করেছি, যৌন সম্পর্ক তো করতেই হবে” এমন একটা ভাবনা মনে পোষণ করেন। তাঁরা জানতেও পারেন না যে এই ভাবনাটাই তাঁদের যৌন সম্পর্করের আবেগ, উচ্ছ্বাসতা কমিয়ে দেয় অনেক খানি। ভালোবাসা বিহীন যৌন সম্পর্ক সাময়িক ভাবে ভালো লাগলেও দীর্ঘ সময়ের ক্ষেত্রে কেবল অতৃপ্তিই নিয়ে আসে।

২) অ্যারেঞ্জ ম্যারেজের ক্ষেত্রে যা হয়, যদি একদম পরিচিত দুটি মানুষের বিয়ে হয় তাহলে যৌনতা নিয়ে সমস্যা হতেই পারে। একটি মানুষকে কদিন আগেও চিনতেন না, জানতেন না। এখন হুট করেই তাঁর সাথে শরীর বিনিময় করতে হচ্ছে। এমন ক্ষেত্রে জড়তা ও সংকোচটা চলেই আসে। পরস্পরকে সময় দিন, বোঝার চেষ্টা করুন, মানসিকভাবে কাছাকাছি হয়ে যান। দেখনে যৌন জীবনের অসুখ কেটে গেছে।

৩) লজ্জা ও সংকোচ যৌন জীবনে অসুখী হবার আরেকটা বড় কারণ। অনেক দম্পতিই এই ব্যাপারটা নিয়ে পরস্পরের সাথে কথা বলেন না। ফলে সঙ্গীকে জানানো হয় না যে তিনি কী চান বা কোনটা তাঁর ভালো লাগে। মনের মাঝে গোপন ইচ্ছা নিয়েই কেটে যায় জীবন।

৪) বাচ্চা হবার পর দম্পতিদের যৌন জীবনে বেশ বড় একটা বিপর্যয় দেখা দেয়। স্ত্রীর গর্ভকালে এবং বাচ্চা প্রসবের পর বেশ অনেকটা সময় যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করা হয়। এমন ক্ষেত্রে একটা দূরত্ব চলে আসে। এই বিষয়টি কেবল পারস্পরিক ভালোবাসা ও সমঝোতার মাধ্যমেই সমাধান করা সম্ভব।

৫) সন্তান হবার পর সন্তানকে কাছে রাখেন সবাই। ছোট্ট সন্তানের কারণে হয়তো অসুবিধা হয় না। কিন্তু সন্তান একটু বেড়ে ওঠার পর যখন মা-বাবার কাছে ঘুমায়, তখন দম্পতিদের মাঝে যৌন জীবনে বেশ একটা অসুবিধা দেখা দেয়।

৬) একান্ত সময়ের অভাব বা প্রাইভেসির অভাব, জয়েন ফ্যামিলিতে থাকা, নিজেদের একটু ছুটিতে বা নিরিবিলি বেড়াতে যাওয়ার সুযোগের অভাব ইত্যাদি মিলিয়ে দম্পতিদের মাঝে দূরত্ব আসে। ফলাফল গড়ায় যৌন জীবনে অশান্তি পর্যন্ত।

৭) এসব ছাড়াও শারীরিক দুর্বলতা বা অক্ষমতা, কোন ধরণের অসুখ, যে কোন একজনের মানসিক সমস্যা ইত্যাদি কারণও যৌন জীবনে অসুখী হবার পেছনে মুখ্য ভূমিকা রাখে।

আপনার সঙ্গী আপনার সবচাইতে কাছের মানুষ। যৌন জীবনে অশান্তির কারণে তাঁর সাথে মানসিক দূরত্ব বাড়তে দেবেন না। বরং মানসিক দূরত্ব কমিয়ে আনুন, একটু সমঝোতা আর ভালোবাসার বিনিময়ে যৌন জীবন হয়ে উঠবে সুন্দর।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.