ব্রেকিং নিউজ :
News Tangail

মির্জাপুরে ১৬ দিন পেরিয়ে গেলেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত জেসমিন আক্তার

নিজস্ব প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে অপহৃত নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী জেসমিন আক্তার (১৫) অপহরণের ১৬ দিন পরও উদ্ধার হয়নি।

সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার কুরণী গ্রামের আঃ লতিফ সিকদারের মেয়ে জেসমিন আক্তার (১৫) কুরণী জালাল উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রতিদিনের মতো গত ২৯ আগস্ট বিদ্যালয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে রওনা হয় তবে পথি মধ্যে উপজেলার গোড়াই ইউনিয়নের সোহাগপাড়া গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে সোহেল মিয়া (৩৩) ও অজ্ঞাতনামা ২-৩ জন জেসমিনকে প্রাইভেটকারে উঠিয়ে নিয়ে চলে যায়।

উল্লেখ্য যে, ঘটনার দিন জেসমিনকে অনেক খোজাখুজি করার পরও না পেয়ে ঘটনার দুই দিন পর মির্জাপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন জেসমিনের বাবা লতিফ সিকদার।

অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে, অভিযুক্ত ১নং বিবাদী সোহেল মিয়া প্রতিনিয়তই জেসমিনকে স্কুলে যাওয়ার পথে কু-প্রস্তাব দিত। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে অপহরণ করা হয় বলে পরিবারের অভিযোগ। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ১নং বিবাদী সোহেল মিয়ার পিতা আমির উদ্দিন ও প্রাইভেটকার চালক আব্বাস উদ্দিনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হলে এমতাবস্থায় মেয়ের বাবা লতিফের কাছে একটি ফোন আসে ঐ ফোনে তার মেয়ে জেসমিন কান্না স্বরে কথা বলে,“আব্বু তুমি মামলা উঠিয়ে নাও তা না হলে আমাকে মেরে ফেলবে ওরা! তারপর থেকেই ঐ নম্বারটি বন্ধ থাকে এবং কোনো খোজ খবর এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি বলে জানান মেয়ের বাবা লতিফ।

পরবর্তীতে আটককৃত দুই জনের কাছ থেকে পুলিশ কোনো তথ্য না পেলে সোহেল ও ঘটনার সাথে জড়িতদের থানায় হাজির করা হবে মর্মে আটক কৃত দুই জন মুচলেকা দিয়ে চলে যায়। কিন্তু মুচলেকা দেয়ার পরও জড়িতদের কোনো তথ্য এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি এবং অপহরণের ১৬ দিন পার হয়ে যাওয়ার পরও পুলিশ জেসমিনকে উদ্ধার করতে পারেনি ও ঘটনার সাথে জড়িতদের কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মিজানুল হকের সাথে যোগাযোগে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, উক্ত ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের আপ্রাণ চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.