ব্রেকিং নিউজ :
News Tangail

নাগরপুর সদর বাজারের রাস্তা ঘাটের বেহাল দশা

নিজস্ব প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার সদর বাজারের আভ্যন্তরিন রাস্তাগুলো চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। রাস্তাগুলো দীর্ঘ দিন ধরে সংস্কারের অভাব ও ব্যবসায়ীদের অসচেনতার জন্য আজ রাস্তার বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। বাজারের ভিতর দিয়ে স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায় নাগরপুর-ছনকা ও নাগরপুর-মির্জাপুর সড়ক এবং সড়ক ও জনপথের আওতায় টাংগাইল-আরিচা আঞ্চলিক মহাসড়ক চলে গেছে। এ সকল রাস্তা মাঝে মধ্যে সংস্কার হলেও সংস্কারের অভাবে পড়ে রয়েছে কলেজ রোড, বটতলা-তালতলা রোড ও চাউল বাজার-জামে মসজিদ রোড।

নাগরপুর-মির্জাপুর সড়কের নাগরপুর সদর বাজারের বটতলা হতে তালতলা পর্যন্ত এলজিইডির সড়কটি দীর্ঘ দিন ধরে সংস্কার হচ্ছে না বলে বাজারের ব্যবসায়ী ও ক্রেতা-বিক্রেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এই রাস্তা দিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন প্রকার ভাড়ী যানবাহন চলাচল ও বৃষ্টির পানি জমে রাস্তার বিভিন্ন বিভিন্ন অংশের বিটুমিন নষ্ট হয়ে ইট-পাথরের খোয়া উঠে গিয়ে খানা-খন্দকের সৃষ্টি হয়েছে।

খানা-খন্দকের ফলে স্কুল- কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী, হাট-বাজারের ক্রেতা-বিক্রেতা ও যানবাহন নিয়ে এ রাস্তায় চলাচলকারী হাজার হাজার মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। রাস্তাগুলোর বেহাল দশার কারনে চলাচল করতে গিয়ে পথচারীদের বিভিন্ন প্রকার অপ্রীতিকর দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হচ্ছে।

উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা যেমন হাসপাতাল, মহিলা কলেজ, ব্যাংক, জমিদার বাড়ি প্রভৃতি জায়গায় যেতে হলে বাজার রোড ব্যবহারের বিকল্প কোন রাস্তার ব্যবস্থা নেই। পথচারী কামাল হোসেন রাস্তার বেহাল দশার জন্য উপজেলা প্রশাসনের উদাসিনতা ও ব্যবসায়ীদের অসচেনতাকে দায়ী করেন। কারন ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান নির্মানের সময় পানি নিস্কাশনের কোন ব্যবস্থা রাখেননি। ফলে বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে।

নাগরপুর বাজার বনিক সমিতির আহবায়ক হাবিবুর রহমান লিটন জানান, বর্তমান সরকারের আমলে নাগরপুর উপজেলার রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন হলেও সদর বাজারের রাস্তা-ঘাটের তেমন কোন উন্নয়ন হয়নি। তিনি আরো বলেন যেহেতু নাগরপুর উপজেলায় কোন পৌরসভা নেই সেহেতু বাজারের উন্নয়নে স্থানীয় ও উপজেলা প্রশাসনকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

রাস্তার উন্নয়নের ব্যাপারে উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী মো. শাহীনুর আলম জানান, নাগরপুর সদর বাজারের বিভিন্ন রাস্তার বেহাল দশার কথা শুনেছি। যত দ্রুত সম্ভব রাস্তার গুরুত্ব বুঝে মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ করবো।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.