ব্রেকিং নিউজ :
News Tangail

১০-১২ দিনের মধ্যে সরকারকে এমনিতেই চলে যেতে হবে ……কাদের সিদ্দিকী

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম বলেছেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের বর্ধিত সভায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম ২০-২৫ দিনের জন্য শেখ হাসিনার পতন চাই না। আর ১০-১২ দিনের মধ্যে এই সরকারকে এমনিতেই চলে যেতে হবে।

টাঙ্গাইল ক্লাব প্রাঙ্গণে বৃহস্পতিবার বিকালে টাঙ্গাইল জেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের এক কর্মী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, জনগণের ভোট নিয়ে এ দেশে ১০০ বছর ক্ষমতায় থাকুন। কিন্তু ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি মতো ভোট ছাড়া ক্ষমতা দখল করলে স্বৈরাচার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবেন এবং আপনিই হবেন বিশ্বের প্রথম নারী স্বৈরাচার। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর কন্যা হিসেবে সেটি আপনি করতে পারেন না।

ড. কামাল হোসেন, বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও আ.স.ম আব্দুর রব সম্পর্কে আওয়ামী লীগ নেতা হাসান মাহমুদ মন্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে সম্মান করতে শিখুন। আ.স.ম আব্দুর রব যদি ১০ জন লোক একসঙ্গে করে সেটি ১০ লাখ মানুষের সমান। আ.স.ম রব স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলন করেছিলেন বলেই মন্ত্রীরা তাদের গাড়িতে পতাকা লাগিয়ে ঘুরছেন। তাদের বিরুদ্ধে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ নেতা হাসান মাহমুদ বেয়াদবি করেছেন।

দেশের উন্নয়ন প্রসঙ্গে কাদের সিদ্দিকী বলেন, বর্তমান সরকারের সময় দেশের কোনো উন্নয়ন হয়নি। আগে মাথাপিছু ঋণ ছিল ১২শ’ টাকা। বর্তমানে বিশ্বব্যাংকের সেই ঋণ দাঁড়িয়েছে মাথাপিছু ৬০ হাজার টাকা।

দেশের বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে প্রবীণ রাজনীতিক ড. কামাল হোসেন ও সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী একসঙ্গে থাকলে তাদের সঙ্গে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ থাকবে বলেও জানান কাদের সিদ্দিকী।

তিনি বলেন, আপনারা একসঙ্গে চললে আছি, দুজন দুইদিকে বেগ ধরে চলে যাবেন তাহলে আপনাদের সঙ্গে নেই এবং দেশের জনগণ আপনাদের ক্ষমা করবে না।

জেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে কর্মী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান খোকা বীরপ্রতীক, কেন্দ্রীয় নেত্রী নাসরিক কাদের সিদ্দিকী, জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এটিএম সালেক হিটলু, নাটোর জেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি শহীদুর রহমান মুন্সি, জামালপুর জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, সাংগঠনিক সম্পাদক বেল্লাল হোসেন, যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা ফেরদৌস আহমেদ, জেলা শাখার যুব আন্দোলনের সভাপতি হাবিবুন্নবী সোহেল প্রমুখ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.