News Tangail

সেই গ্রুপ রানারআপই হলো বাংলাদেশ

গ্রুপ পর্বের সব ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই সুপার ফোরের সূচি নির্ধারণ করে ফেলেছিল এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)। এ নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। বাংলাদেশকে বি গ্রুপের রানারআপ ধরে সেই সূচি তৈরি করার কারণে কম সমালোচনাও হয়নি।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশকে গ্রুপ রানারআপ হয়েই যেতে হলো সুপার ফোরে। আফগানিস্তানের কাছে ১৩৬ রানের বিশাল ব্যবধানে হারের ফলে বি গ্রুপের রানারআপই হতে হলো বাংলাদশকে।

আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নামা আফগানদের দেয়া ২৫৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশ অলআউট হয়ে গেল মাত্র ১১৯ রানে। সর্বোচ্চ ৩২ রান করলেন সাকিব আল হাসান। ২৭ রান করেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। মেসাদ্দেক অপরাজিত ছিলেন ২৬ রানে।

মোটকথা আফগান বোলারদের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। রশিদ খান-মুজিব উর রহমানদের এতটাই সমীহ করতে হয়েছে যে, বাংলাদেশের রানের গতি ছিল স্মরণকালের সবচেয়ে মন্থর। না হয় ৪২.১ ওভারে ২.৮৩ রান রেটে মাত্র ১১৯ রান হতো না। টেস্টও বুঝি এর চেয়ে দ্রুত খেলে!

দুবাইতে ছাড়া আর কোথাও খেলবে না ভারত। এ কারণে এসিসি সুপার ফোরের চারদল নিশ্চিত হওয়ার পরপরই পরের রাউন্ডের সূচি নির্ধারণ করে ফেলে। যেখানে বাংলাদেশকে ধরা হয় গ্রুপ রানারআপ। ফলে সুপার ফোরের প্রথম ম্যাচ বাংলাদেশের ফেলা হয় দুবাইতে ভারতের বিপক্ষে। অর্থাৎ আফগানদের বিপক্ষে ম্যাচ শেষ হওয়ার পরই পুরো দলকে আবুধাবি থেকে চলে আসতে হচ্ছে দুবাইতে। কাল বিকেলেই যে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ!

বাংলাদেশকে কেন আগাম রানারআপ ঘোষণা করা হলো এ নিয়ে তুমুল বিতর্ক। অধিনায়ক মাশরাফি পর্যন্ত এ নিয়ে কথা বলেছেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ গ্রুপ বি থেকে রানারআপ হয়েই উঠলো সুপার ফোরে। এসিসি যে সূচি তৈরি করে দিয়েছিল সেটাই হুবহু মিলে গেল।

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.