News Tangail

গণধর্ষণের পর পুলিশে খবর দিলো ধর্ষকরা

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় বাসায় ঢুকে এক গৃহবধূকে মুখ বেঁধে গণধর্ষণের পর গৃহবধূসহ তার জা’কে যৌনকর্মী আখ্যা দিয়ে পুলিশে খবর দিয়ে এক ধর্ষক ধরা পড়েছে। ঘটনার পর আরও তিন ধর্ষক পালিয়ে গেছে।

রোববার সকালে উপজেলার কাঁচপুর সোনাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সোমবার দুপুরে এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলার কাঁচপুর সোনাপুর এলাকার জেরিন টাওয়ারের ৩য় তলায় একটি ফ্ল্যাট বাসায় ওই গৃহবধূ স্বামীর সঙ্গে বসবাস করেন। শুক্রবার তার স্বামী গ্রামের বাড়ি বেড়াতে যান। ওইদিনই তার দেবর ও জা তাদের বাসায় বেড়াতে আসেন। রোববার সকালে স্বামী না থাকার সুযোগে কাঁচপুর এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ইকবাল হোসেন, হেলাল, রবিন ও দেলোয়ার জোড়পূর্বক তাদের ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় তার দেবরকে মারধর করে জাসহ তাদেরকে একটি কক্ষে আটকে রাখে।

একপর্যায়ে গৃহবধূকে ওড়না দিয়ে মুখ বেঁধে ওই মাদক ব্যবসায়ীরা পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তারা ওই গৃহবধূর দেবরের কাছে থাকা নগদ টাকা ও ঘরে থাকা প্রায় ১০ হাজার নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এরপর তারা ওই গৃহবধূ ও তার জা’কে যৌনকর্মী এবং দেবরকে মাদক ব্যবসায়ী আখ্যা দিয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসল রহস্য জানার পর হেলাল নামে এক ধর্ষককে আটক করে।

সোনারগাঁ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) তানভির আহম্মেদ জানান, আটক হেলাল জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় মামলা করেছেন। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.