ব্রেকিং নিউজ :
News Tangail

টেস্টে ইংল্যান্ড বধের দুই বছর

টেস্টে ক্রিকেটের সবচেয়ে আদি-আভিজাত দুই দল তারা। সেই ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াকে দেশের মাটিতে পরপর দুই টেস্টে হারিয়ে দিল বাংলাদেশ। যেটি দুই দলের বিপক্ষেই বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট জয়, ঐতিহাসিক জয়।

দুটি জয়ই আবার প্রায় একইরকম, দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে। গত বছরের অক্টোবরে মিরপুরে ২৭৩ রান তাড়া করতে নেমে বিনা উইকেটে ১০০ রান তুলে ফেলেছিল ইংল্যান্ড। এরপরই ভোজবাজির মতো পাল্টে যায় সবকিছু। এক সেশনে ১০ উইকেট তুলে নিয়ে ইংল্যান্ডকে ১৬৪ রানে গুটিয়ে দিয়ে অসাধারণ জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ।

টেস্ট জিতল বাংলাদেশ। জেতালেন তো আসলে তিনিই। দুই ইনিংস মিলিয়ে ১২ উইকেট নিলেন।
ইংল্যান্ডকে যে টেস্টে হারিয়ে ঐতিহাসিক জয়টি তুলে নিল বাংলাদেশ, সেই টেস্টটি তো মিরাজময়ই হয়ে থাকল। দ্বিতীয় টেস্টটিই কী শুধু মিরাজময় হলো, সিরিজজুড়েই তো ‘মিরাজ, মিরাজ’ ধ্বনি শোনা গেল। প্রথম টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৭ উইকেট (৬ ও ১ উইকেট) নিলেন। দ্বিতীয় টেস্টে তো ১৯ বছর বয়সী এ তরুণ দুই ইনিংসেই নিলেন ৬ উইকেট করে।
দ্বিতীয় টেস্টে ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাসই শুধু তুললেন না, সেই সঙ্গে বাংলাদেশকে জয়ও এনে দিলেন।

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ২২০ রান করল। মিরাজের ঘূর্ণির সামনে পড়ে ২৪৪ রানের বেশি প্রথম ইনিংসে করতেই পারল না ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে ইমরুল কায়েসের ৭৮ রানে ২৯৬ রান করে আড়াই দিন আগে ইংল্যান্ডের সামনে বড় টার্গেটই ছুড়ে দিল। যে টার্গেট অতিক্রম করা ইংল্যান্ডের জন্য কষ্টসাধ্য তা আগেই বোঝা গেছে। তাই বলে এতটা। তা ধারণা করা যায়নি।

উপমহাদেশে কখনই ২৫০ রানের বেশি টার্গেটে জিততে পারেনি ইংল্যান্ড। এবারও তাই হলো। এবার তো ১৮০ রানও করতে পারল না। বিনা উইকেটে ১০০ রান করে ইংল্যান্ড দ্বিতীয় সেশনের বিরতিতে যায়। তৃতীয় সেশন শেষ না হতেই ইংল্যান্ডের ইনিংস খতম!

তৃতীয় সেশনের প্রথম বলেই ডাকেটকে আউট করে যে উইকেট শিকার শুরু করলেন মিরাজ, দেখতে দেখতে ব্যালান্স, মঈন, কুক, বেয়ারস্টো, ফিনের উইকেট তুলে নিলেন।

মাঝখানে ৪৩ ওভারের সময় সাকিবের ঘূর্ণিঝড় দেখা মিলল। ৪ বলে তিন উইকেট নিয়ে নিলেন। ৬৪ রানেই ১০ উইকেট পড়ে গেল ইংল্যান্ডের।আর কি টেস্টে ইংলিশ বধের মিশনে নাম লেখালো বাংলাদেশ।

এই জয় পেয়ে বাংলাদেশ সিরিজও ১-১ ব্যবধানে ড্র করল। ২৭৩ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ১৬৪ রানের বেশি করতেই পারল না ইংল্যান্ড। মিরাজ অসাধারণ বোলিং করে সিরিজ সেরার পুরস্কারটিও নিজের করে নিলেন।

ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সিরিজেই বাজিমাত করলেন মিরাজ। বাঁধন হারা আনন্দে ছোটাছুটিটা তাই তিনিই সবচেয়ে বেশি করলেন। আর যেন ইংল্যান্ডের শেষ উইকেটটি নিতেই দেশের হয়ে টেস্ট সিরিজে সবচেয়ে বেশি ১৯ উইকেট নিয়ে দুই হাত মেলে দিয়ে বলতে চাইলেন, ‘মেলে দিলাম এই ডানা মনে মনে।’

আগের দিনই বিশ্ব ক্রিকেটে প্রথম অফ স্পিনার হিসেবে টানা দুই টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেট তুলে নিয়ে ইতিহাস গড়েছিলেন মিরাজ।

একটা সময় বাংলাদেশকে টেস্ট খেলতে দেখেই অবাক হতেন জিওফ বয়কট। ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক বাংলাদেশকে নিয়ে তাচ্ছিল৵ও কম করেননি। সেই দিন গেছে। এখন ইংল্যান্ডকে টেস্টেও হারিয়ে দেয় বাংলাদেশ। তাই বদলেছে বাংলাদেশকে নিয়ে বয়কটের দৃষ্টিভঙ্গিও।

বাংলাদেশ যে মিরপুর টেস্টে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিল, তাতে মোটেও অবাক হননি বয়কট। তাঁর মতে, এমনটাই তো হওয়ার কথা। ওয়ানডে সাফল্যের ধারাবাহিকতাই বাংলাদেশকে টেস্ট জয়ের সাহস জুগিয়েছে বলে মনে করেন সপরিবারে ভারত সফরে আসা বয়কট, ‘ইংল্যান্ডের ওই টেস্টটা হারা উচিত হয়নি। তবে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের রেকর্ডকে বিবেচনা নিয়ে বলতেই হয়, ওদের ক্রিকেট এগোচ্ছে আর একদিন না একদিন এমনটা (বড় দলকে হারানো) হতোই।’

Please follow and like us:
error0
fb-share-icon20
Tweet 20
fb-share-icon20

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial