ব্রেকিং নিউজ :

টাঙ্গাইলের আটটি আসনে মনোনয়নপত্র বাতিল যাদের

নিজস্ব প্রতিনিধি: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইলের আটটি আসনে ১৪টি মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। দুইটি আসনে ঋণখেলাপির অভিযোগে ঐক্যফ্রন্টের শরিক কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তমের মনোনয়পত্রও বাতিল করা হয়েছে।

টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাত) ও টাঙ্গাইল-৮ (সখীপুর-বাসাইল) আসনের জন্য মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম। তিনি ঋণখেলাপি হওয়ায় প্রার্থিতা বৈধ ঘোষণা করা হয়নি।

এছাড়া ঋণখেলাপির অভিযোগে টাঙ্গাইল-১ (ধনবাড়ী-মধুপুর) আসনের ঐক্যফ্রন্টের শরিক বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ফকির মাহাবুব আনাম স্বপন ও টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনে বিএনপি প্রার্থী নুর মোহাম্মদ খানের মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়েছে।

রবিবার দুপুরে মনোনয়ন বাচাই বাছাই শেষে জেলা রিটানিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

ঋণ খেলাপির অভিযোগে আরও যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে তারা হলেন- টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের এনপিপি প্রার্থী মো. চাঁন মিয়া ও বিএনএফ আতাউর রহমান খান, টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. বাকির আলী ও আবুল কাশেম, টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনের বিএনএফ প্রার্থী মো. সুলতান মাহমুদ ও এনপিপি প্রার্থী মামুনুর রহমান, টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের খেলাফত মজলিস প্রার্থী মজিবর রহমান, টাঙ্গাইল-৮(সখীপুর-বাসাইল) আসনের জাতীয় পাটি প্রার্থী কাজী আশরাফ সিদ্দিকী, খেলাফত মজলিস প্রার্থী আব্দুল লতিফ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী শহীদুল ইসলাম।

তবে এই আদেশের বিরুদ্ধে তাদের নির্বাচন কমিশনে আপিল করার সুযোগ রয়েছে। সেখানেও যদি তারা স্বপক্ষে আদেশ না পেলে উচ্চ আদালতেও যেতে পারবেন।

মনোনয়নপত্র বাতিলের প্রতিবাদে কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, যতক্ষণ পর্যন্ত আমার বোনের (শেখ হাসিনা) সরকার থাকবে আমার মনে হয় সেই পর্যন্ত আমাকে তারা নির্বাচন করতে দেবে না। তবে আমি চাই, নির্বাচনটা ভালো হোক। আমার সংগ্রাম হলো- ভোটার যেন ভোট দিতে পারে। এখন যে কুশাসন চলছে এ শাসন ভালো না। নির্বাচনে বর্তমান সরকার ২০টা সিট পাবে, যদি আমার দেশপ্রেম সত্য হয়।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.