টাঙ্গাইলে দিনে-দুপুরে লাগাতার চুরির ঘটনায় আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে দিনে-দুপুরে চার বাসাবাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলা আনসার-ভিডিবি কর্মকর্তার বাসাসহ আরো তিনটি বাড়িতে চুরির এই ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মিটিং চলাকালে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে খবর আসে উপজেলা আনসার-ভিডিবির কর্মকর্তা সাজেদা আক্তার শান্তির বাসায় তালা ভেঙে ৫ ভরি সোনার গহনা ও নগদ ৩৫হাজার টাকা, উপজেলা সমবায় অফিসের অফিস সহকারি জয়নব খাতুনের বাসা থেকে নগদ চার হাজার টাকা, ইবরাহীম খাঁ সরকারি কলেজ সংলগ্ন শফিকুল ইসলামের বাসার দ্বিতীয়তলার দুই ভাড়াটিয়া প্রকৌশলী রবিনের রুম থেকে ১ ভরি সোনার গহনা ও পাশের ফ্লাডের বাসিন্দা প্রকৌশলী মুক্তার আলীর বাসার তালা ভেঙে নগদ তিন হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায় চোর চক্র। আর এই চারটি চুরির ঘটনা ঘটে দুইঘন্টার ব্যবধানে।

চুরির ঘটনার খবর পেয়েই উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মিটিং দ্রুত শেষ ওই সব বাসা পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ। এছাড়া গত শনিবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে পৌর এলাকার ফসলান্দি গ্রামে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নওশের খানের বাড়িতেও চুরির ঘটনা ঘটে। অন্যদিকে গত ৬ জানুয়ারি ভূঞাপুর প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আতোয়ার রহমানের বাসায় দুপুর ১২টার দিকে একই কায়দায় চুরির ঘটনা ঘটে। এসময় ৭ ভরি সোনার গহনা ও নগদ ২৯ হাজার টাকা চুরি করে চোর চক্র।

এদিকে উপজেলায় ধারাবাহিকভাবে চুরির ঘটনায় আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি ঘটলেও অজ্ঞাত কারনে পুলিশ চুরির সাথে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। ফলে দিন দিন চুরির ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ায় এলাকার সাধারন মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

এবিষয়ে থানা অফিসার ইনচার্জ রাশিদুল ইসলাম জানান, চুরির ঘটনার বিষয়টি শুনেছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ জানান, ওসি তদন্তসহ আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। খুব শীগ্রই দোষীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.