টাঙ্গাইলের গর্ব অভিনেতা আফরান নিশো

নিউজ ডেস্ক: আফরান নিশোর পুরো নাম আহমেদ ফজলে রাব্বি। তার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ ভোলা মিঞা, টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক ও টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের সদস্য। উপজেলার অলোয়া ইউনিয়নের ভারই গ্রামের কৃতি সন্তান আফরান নিশো। স্থানীয়ভাবে তাদের বাড়ি ভারই সেন বাড়ি নামে পরিচিত। তিনি ১৯৮৮ সালের ৮ ডিসেম্বর জন্মগ্রহন করেন।

ছোট বেলা থেকে টাঙ্গাইল শহরে বেড়ে উঠেছেন। নিশো টাঙ্গাইল বিন্দুবাসিনী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। ঢাকা ধানমন্ডি বয়েজ হাই স্কুল থেকে এসএসসি ও ঢাকা কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর ইস্টওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি থেকে গ্যাজুয়েশন করেন। ২০০০ সাল থেকে নিশো প্রথমে বিভিন্ন বুটিক হাইসের স্টিল ফটো মডেল হিসাবে ক্যারিয়ার শুরু করেন, পরে কিছু দিন র‍্যাম্পে ও কাজ করা হয় এবং শেষ পর্যন্ত টেলিভিশান টিভিসিতে কাজ করেন ।

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহীত।এক সন্তানের জনক। ২০০০ সাল থেকে নিশো প্রথমে বিভিন্ন বুটিক হাইসের স্টিল ফটো মডেল হিসাবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। ২০০৩ সালে অমিতাভ রেজার বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করার মাধ্যমে শুরু হয় তাঁর যাত্রা। এরপরে আরো নানা নির্মাতার সাথে নানারকম কাজ করেন নিশো এবং একই বছরআফজাল হোসেনের প্রতিষ্ঠান টকিজে একদিন স্ক্রিন টেস্ট দেন এবং টেস্ট কমপ্লিট করে থাইল্যান্ডে গিয়ে ডাবল কোলা ব্র্যান্ডের জিনি জিনজার ফ্লেভারের একটি বিজ্ঞাপনচিত্রে অংশ নেন তিনি।

এরপরে গাজী শুভ্র, গোলাম হায়দার কিসলু, কিরন মেহেদী সহ খ্যাতনামা অনেক পরিচালকের বিজ্ঞাপনে কাজ করেন । ২০০৫ সালে বাংলাভিশনে প্রচারিত গাজী রাকায়েতের পরিচালনায় ঘরছাড়া নাটকের মধ্যদিয়ে তার নাটকে অভিনয় জীবন শুরু হয়। প্রথম নাটক করেই সকলের নজর কাড়েন তিনি এবং এর পরে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি নিশোকে । বর্তমান সময়ে ছোটপর্দার সবচেয়ে জনপ্রিয় মুখ নিশো । এখন তাকে নাটক-বিজ্ঞাপনে অভিনয় করানোর জন্য অনেক নির্মাতাদের শিডিউল হাতে অপেক্ষা করতে হয়! বর্তমানে বেশ কিছু একদিনের এবং ধারাবাহিক নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন নিশো ।

তার অভিনীত বেশ কয়েকটি সিরিয়াল প্রচার হচ্ছে নানা টিভি চ্যানেলে এবং ২০১৮ সালের ঈদুর ফিতরের প্রায় সবগুলো নাটকে একচেটিয়াভাবে অভিনয় করতে দেখা গেছে নিশোকে । পাশাপাশি তিনি কাজ করেছেন দেশের বিভিন্ন বড় সব বিপণন প্রতিষ্ঠানের পণ্যের বিজ্ঞাপনে। তার অভিনীত প্রায় ৯৯% কাজই দর্শক সমাদৃত । কমেডি, রোমান্টিক কমেডি, এ্যাকশান, নেগেটিভ রোল কিংবা থ্রিলধর্মী সব ধরনের ক্যাটাগরিতেই সমান তালে অভিনয় করে চলেছেন এই গুনী অভিনেতা।

তিনিই একমাত্র অভিনেতা যাকে দর্শকরা এমনকোন চরিত্রে দেখেনি যা বলা মুশকিল সেটা হোক, গ্রামের সহজ সরল যুবক, একজন মাঝির চরিত্র, একজন লিফম্যান , একজন পাগলের চরিত্র, হকার বা ফেরিওয়ালার চরিত্র, কিংবা মোবাইল মেকানিক্যাল, বা গ্যাং লিডির, একজন প্রেমিক বা স্বামী সব ধরনের চরিত্রে নিজেকে উজার করে দেন এই অভিনেতা । একজন অভিনেতা যে এত অসাধারন এবং ন্যাচারাল অভিনয় করতে পারে যা নিশোর অভিনয় দেখলেই সকলে উপলদ্ধি করেন । তাই তো এদেশের তরুন প্রজন্ম তাকে নাটকের বস বা গুরু বলে সম্বোধন করেন ।

নিশো অভিনিত উল্লেখযোগ্য কিছু কাজ হলো, অচেনা মানুষ, স্বপ্নগুলো ইচ্ছে মত, ইডিয়টস, টার্নওভার, ফুলমতি, শুধু তোর জন্য, তুমি না থাকলে, লোটাকম্বল, রেডরোস, বিয়ে পাগল, শেষচিঠি, আকাশের ঠিকানায়, ইঞ্জিন, ধুমকেতু, কংকাবতির চিঠি, প্রেম না দ্বিধা, আবারওদেবদাস, আকাশের ঠিকানায়, এক্স স্কয়ার, হাটবিট, নিখোজ ভালবাসা, সংসার, কমলা সুন্দরী, বাক, ডাইভোর্স, হাওয়াই শহরের গল্প,গুলবাহার, বুদোধয়, একটি অসমাপ্ত ভালবাসা,ঘুরে দাড়ানোর গল্প, প্রতীক্ষা, হেলফুল সাইফুল, হোমটিউটর, অগোচরে ভালবাসা, জীবন সংগী, কমলার বনবাস, অনুভবে, সহজ সরল ছেলেটা এবং বহুল জনপ্রিয় নাটক বুকের বা পাশে ইত্যাদি। এই টেলেনটেড অভিনেতা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বেশ আলোচিত, এখন পর্যন্ত ফেইসবুকে তাকে প্রায় ১ লক্ষ ৮৩ হাজারেরও অধিত লোক তাকে ফলো করেন।

নিশোর পারিশ্রমিক নাটক প্রতি ৫০ থেকে ২ লক্ষ টাকা । অভিনয়ের পোকা এই মানুষটাকে চলচিত্রে দেখা যায়নি এখনো, এর কারন হলো নিশোর ইচ্ছা হলো…..এমন একটি ভিন্নধর্মী চরিত্র বা গল্প হবে যা সম্পূর্ন ন্যাচারাল বা ইউনিক হওয়া চাই , কোন কপি স্কিপ্ট নয় । এই একটি কারনেই এখন পর্যন্ত অনেক মুভির অফার ফিরিয়ে দিয়েছেন নিশো । তবে আমরা আশাবাদী খুব শিঘ্রই আমারা তাকে ভিন্নধর্মী কোন চলচিত্রে অভিনয় করতে দেখতে পাবো ।

নিজের অভিনয় নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখেন নিশো , আর স্বপ্ন হলো একদম বাস্তবিক সব ধরনের ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে কাজ করতে চান তিনি । কোন একটি চরিত্রে নয় বরং বহুমাত্রিক চরিত্রে কনটিনিউ অভিনয় করে যেতে চান তিনি । তিনি প্রয়াত জনপ্রিয় অভিনেতা হুমায়ুন ফরিদিকে আইডল মানেন । অভিনেতা হিসাবে সবার মাঝে টিকে থাকতে চান না নিশো তিনি চান সবাই যেন তাকে একজন ভাল পারফরমার হিসাবে ভালবাসেন । তার ইচ্ছা হলো মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি অভিনয় করে যাবেন শুধুতার দর্শকদের জন্য ।

নিশোর স্মার্ট এন্ড এট্রাকটিভ লুক, ইউনিক এবং দুর্দান্ত ভিন্নধর্মী অভিনয় দিয়ে খুব অল্প সময়ের মধ্যে আকাশচুম্বি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন এবং কোটি দর্শকের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। তিনি ৩ শতাধিক নাটকে অভিনয় করেছেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.