টাঙ্গাইলের ইভটিজিং করে যাওয়ার সময় শিক্ষার্থীর ওপর মোটরসাইকেল উঠিয়ে দিল বখাটে

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ইভটিজিং করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ছয় শিক্ষার্থীর ওপর মোটরসাইকেল উঠিয়ে দিল দুই বখাটে। রোববার সকাল ১০টায় উপজেলার হাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত এক ছাত্রী ও এক ছাত্রকে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় হৃদয় নামে এক বখাটেকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা।

উপজেলার হারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ছয় শিক্ষার্থী অষ্টম শ্রেণির শিলা আক্তার, নার্গিস আক্তার, শায়েলা আক্তার, স্মৃতি আক্তার, ষষ্ঠ শ্রেণির ইতি আক্তার ও এসএসসি পরীক্ষার্থী শাওন সকাল ৯টার দিকে বিদ্যালয়ে যাচ্ছিল। এ সময় একই এলাকার চানপুর গ্রামের জবেদ আলীর ছেলে হৃদয় ও তার সহযোগী শিশির মোটরসাইকেলযোগে ওই স্কুল শিক্ষার্থীদের ইভটিজিং করে মোটরসাইকেল নিয়ে দ্রুতগতিতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এতে হারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ছয় শিক্ষার্থী আহত হয়।

এদের মধ্যে শাওন ও শিলার পা ভেঙে গেছে। তাদের কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় জনতা বখাটে হৃদয়কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। বখাটে শিশির পালিয়ে যায় বলে শিলার বড় ভাই মো. এরশাদ মিয়া জানিয়েছেন।

হারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলীম বলেন, হৃদয় এই বিদ্যালয়ের ছাত্র হলেও সে বখাটে প্রকৃতির। হৃদয় ও অপর বখাটে শিশির প্রায় প্রতিদিন রাস্তায় ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে বলে তিনি জানান।

মির্জাপুর থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম জানান, স্কুলছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে মোটরসাইকেল নিয়ে ওই দুই বখাটে পালিয়ে যাওয়ার সময় শিক্ষার্থীদের ওপর উঠিয়ে দেয়। স্থানীয় জনতা হৃদয় নামে এক বখাটেকে আটক করে খবর দিলে তাকে থানায় আনা হয় বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.