ব্রেকিং নিউজ

রংপুরকে বিদায় করে ফাইনালে ঢাকা

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সকে বিদায় করে বিপিএলের ফাইনালে পা রাখলো ঢাকা ডায়নামাইটস। মাশরাফিদের বিপক্ষে ৫ উইকেটের জয় তুলে নিল তারা।

মাঝারি লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি ঢাকার। উপল থারাঙ্গাকে ফিরিয়ে প্রথম আঘাতটা হাঁনেন মাশরাফি। তবে রনি তালুকদারকে সঙ্গে নিয়ে দ্রুতই রান তুলতে থাকেন সুনিল নারিন। ১৪ রানে নারিন ফিরে গেলে সাকিব এসে দলকে এগিয়ে নেন। ঢাকার জন্য ধীরে ধীরে সহজ হতে থাকে ম্যাচ। তবে সাকিব, কাইরন পোলার্ড এবং রনি অল্প রানের ব্যবধানে বিদায় নিলে কিছুটা স্বস্তিতে ফেরে রংপুর। তবে ম্যাচটা তাতেও কঠিন হয়নি আন্দ্রে রাসেল এবং নুরুল হাসান সোহানদের জন্য।

মাশরাফি, শফিউলদের শত চেষ্টার পরেও শেষ দিকে একেবারেই হেলেদুলে জয়টা তুলে নেয় ঢাকা ডায়নামাইটস।

এর আগে স্নায়ু চাপে ঠাসা ম্যাচের প্রথম অংশে জতি যায় ঢাকা ডায়নামাইটসেরই। রংপুর রাইডার্সের ব্যাটসম্যানরা তেমন সুবিধা করতে পারেননি। ফলে রংপুরও গুটিয়ে যায় মাত্র ১৪২ রানে।

টস জিতে নেয়া সিদ্ধান্তটাকে সঠিকই প্রমাণ করেন সাকিব আল হাসানের দল। শুরুতে অবশ্য তেমনটা মনে হচ্ছিল না। অন্তত যতক্ষণ দুই ওপেনার ক্রিস গেইল এবং নাদিফ চৌধুরী ক্রিজে ছিলেন। গেইল তার সেরা ফর্মে নেই। এদিনও নিজেকে ফিরে পাননি। তবে ওপেনিংয়ে সুযোগ পেয়ে সেটাকে ভালোই কাজে লাগাচ্ছিলেন নাদিফ চৌধুরী। যদিও ইনিংসটাকে বেশ লম্বা করতে পারেননি তিনি। তবে তার ১২ বলে ২৭ রানের ইনিংস দারুণ শুরু এনে দেয় রংপুরকে। তিনি ফিরে যাওয়ার পরপরই তাকে অনুসরণ করেন ক্রিস গেইল। ওই ওভারেই চলতি বিপিএলের সর্বোচ্চ রানের মালিক রাইলি রুশোকে ফেরান রুবেল। সেরা দুই ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপদে পড়ে রংপুর।

রবি বোপারাকে সঙ্গে নিয়ে দলকে দিশা দেয়ার চেষ্টা করেন মোহাম্মদ মিঠুন। দলীয় ১০৬ রানে তাদের জুটি ভাঙেন কাজী অনিক। এরপর বিনি হাওয়েল দ্রুতই ফিরিয়ে দেন সাকিব আল হাসান। বিপর্যস্ত রংপুরের এক পাশ আগলে খেলতে থাকা রবি বোপারাকে আর কেউ সেভাবে সঙ্গ দিতে পারেননি। অর্ধশতক থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতে ফিরে যান বোপারা। এরই সাথে শেষ হয় রংপুরের ইনিংস।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.