ব্রেকিং নিউজ
News Tangail

টাঙ্গাইলের ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে সভাপতিসহ আহত ৪

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সজিব তালুকদার সহ চারজন আহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বেলা ২টা ৪০মিনিটের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সোমবার রাতে সজিব তালুকদার ছাত্রলীগের দুকর্মীকে নির্যাতনের পর বিক্ষুব্ধ কর্মীরা আজ মঙ্গলবার দুপুরে তার উপর এই হামলা করে বলে জানা গেছে।

আহতরা হলেন, মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি সজিব তালুকদার, সহ-সভাপতি ইমরান, যুগ্ম সম্পাদক রাজিব হোসেন ও আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক শাহাদত আলম দিপু।

প্রত্যক্ষদর্শী ও আহতরা জানায়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক নিবিড় পালের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনান্য শিক্ষার্থীদের নিয়ে লোহার রড দিয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি সজিব তালুকদার ও তার সহযোগীদের উপর অতর্কিত হামলা করে। এতে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ তৈরি হয়।

এতে সভাপতি সজিব তালুকদারসহ আরো তিনজন আহত হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষার্থীরা আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, সোমবার রাত ১০টার দিকে আব্দুল মান্নান হলের দুই ছাত্রলীগ কর্মী রাসেল আল ফারাবি ও সানাউল ইসলামকে সজিব তালুকদার বঙ্গবন্ধু হলে তার কক্ষে ডেকে নেন। সজিব তালুকদারের গ্রুপকে সমর্থন না করায় ওই দুই কর্মীকে জোর পূর্বক সংগঠন থেকে পদত্যাগ করতে বলেন। পদত্যাগ করতে রাজি না হওয়ায় রাত একটা পর্যন্ত আটকে রেখে নির্যাতন করেন। এক পর্যায়ে তাদের কাছ থেকে পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর নেন। এছাড়া ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে অশ্লীল কথাবার্তা বলতে বাধ্য করেন তিনি এবং সে দৃশ্য মুঠোফোনে ভিডিও ধারন করেন। পরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

নির্যাতনের শিকার রাসেল আল ফারাবি জানান, সজিব তালুকদার ও তার সহযোগিরা তাদের দুজনকে টানা তিন ঘন্টা শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন করেছেন।

সকালে এ খবর শোনার পর ছাত্রলীগের সজিব তালুকদার বিরোধীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। বিশ্ববিদ্যালয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়। দুপুর দেড়টার দিকে তারা বঙ্গবন্ধু হলে সজিব তালুকদারের কক্ষে গিয়ে তার উপর হামলা করেন। লাঠি, হকিস্টিক দিয়ে তাকে পেটানো হয়। এতে সজিবের মাথা ফেটে যায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতপ্রাপ্ত হন।

পরে তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সজিব তালুকদারের উপর হামলার পর তার অনুসারিরা ক্যাম্পাস থেকে চলে গেছে।

ছাত্রছাত্রীরা জানায়, সজিব তালুকদারের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, ইয়াবা ব্যবসা, টেন্ডারবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। তিন মাস আগে শিক্ষকদের সঙ্গে অসদাচরনের অভিযোগে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়ীক বহিস্কার করা হয়। তার পরও প্রভাব খাটিয়ে সে অবৈধভাবে বঙ্গবন্ধু হলে অবস্থান করতো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সিরাজুল ইসলাম জানান, দুপুরে এই ঘটনার পর ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বিকেলে উপাচার্য শিক্ষকদের নিয়ে জরুরী সভা করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার জন্য হল প্রভোস্ট, প্রক্টরসহ সবাইকে সচেষ্ট থাকতে অনুরোধ জানিয়েছেন উপাচার্য।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.