সখীপুরে টাকা আত্মসাতের মামলা তুলে নিতে প্রাণ নাশের হুমকি

সখীপুর প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের সখীপুরে টাকা আত্মসাতের মামলায় আসামিপক্ষের বিরুদ্ধে বাদীকে মামলা তুলে নিতে মারধর ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মামলার বাদী উপজেলার বহুরিয়া চতলবাঈদ গ্রামের ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন এ অভিযোগ করেন। এতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তিনি ও তার পরিবার।

জানা যায়, ২০১৭ সালে উপজেলার বহুরিয়া চতলবাঈদ গ্রামের মৃত নান্দু মিয়ার ছেলে ব্যবসায়ী দোলোয়ার হোসেন পাশ্ববর্তী ঘাটাইল উপজেলার ফিরুজপুর গ্রামের আবদুল করিম শাহ’র ছেলে হানিফ শাহ’র সঙ্গে ব্যবসায়ীক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর সুবাদে মো. দেলোয়ার হোসেনের হানিফ শাহ’র কাছে ১২ লাখ ১৭ হাজার টাকা আটকা পড়ে। গত দুই বছর ধরেই দেই দিচ্ছি বলে নানা তাল বাহানা করে সে। এ নিয়ে দুই উপজেলার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বেশ কয়েকবার শালিশী বৈঠকও হয়। অবশেষে ২০১৮ সালের ৯ সেপ্টেম্বর প্রতারক হানিফ শাহ’র বিরুদ্ধে ১২ লাখ ১৭ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে টাঙ্গাইলে কোর্টে

মামলা করেন ভুক্তভোগী দেলোয়ার হোসেন। হানিফ শাহ ওই মামলায় জামিন নিতে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি আদালতে আত্মসর্মপন করলে ম্যাজিস্ট্রেট তার জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে হানিফ শাহ’র লোকজন টাঙ্গাইল কোর্ট পাড়ায় প্রকাশ্যে বাদী দেলোয়ার হোসেনকে মারধর করে। মামলা তুলে নিতে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। পরে লোকজন এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়।

মামলার বাদী মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন- মামলা তুলে নিতে আসামীপক্ষের লোকজন আমাকে মারধরসহ প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে। আমার ব্যবসায়ীক ১২ লাখ ১৭ হাজার টাকা সে আত্মসাৎ করেছে। আমার পরিবার নিয়ে এখন খেয়ে না খেয়ে দিনাতিপাত করছি। এখন আমি ও আমার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। যে কোন সময় তারা আমার প্রাণনাশসহ বড় ধরনে ক্ষতি করতে পারে।

এ ব্যাপারে তিনি প্রশাসনিক হস্তক্ষেপে পাওনা টাকা আদায় ও প্রতারক হানিফ শাহ’র দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.