টাইগারদের বিশ্বকাপের দলে কি পরিবর্তন আসবে, কি ভাবছেন মাশরাফি?

আগামী মে মাস থেকে শুরু বিশ্বকাপ। হাতে খুব বেশি সময় নেই। নিউজিল্যান্ড সফরটাই বাংলাদেশ দলের জন্য শেষ প্রস্তুতি বলা যায়। কিন্তু বিশ্বকাপে যতটা প্রত্যাশা নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল, ততটা কি নিয়ে যাওয়া যাচ্ছে নিউজিল্যান্ড থেকে?

প্রত্যাশার বেলুন যে চুপসে গেছে সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডের বাংলাদেশকে দেখেই। যে নিউজিল্যান্ডকে দুইবার ঘরের মাঠে হোয়াইটওয়াশ করা গেছে, ২০১৭ সালে বিদেশের মাটিতেই দুবার হারিয়েছে, সেই দলটির কাছে একেবারে পাত্তাই পাচ্ছে না মাশরাফি বিন মর্তুজার দল।

নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন উপমহাদেশের সব দলের জন্যই কঠিন। বাংলাদেশের জন্য তো বটেই। এর আগেও নিউজিল্যান্ড সফরে জয়ের দেখা পায়নি টাইগাররা। কিন্তু ২০১৭ সালে সর্বশেষ সফরে নিদেনপক্ষে লড়াইটা তো করা গেছে, এবার তো সেটিও হচ্ছে না।

সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডেতেই ৫০ ওভারের আগে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। একবারও আড়াইশর ঘর ছুঁতে পারেনি। আর নিউজিল্যান্ড দুটি ম্যাচই জিতেছে হেসেখেলে, ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

সামনে বিশ্বকাপ। এমন সময়ে দলের এই হাল! তবে কি বিশ্বকাপের আগে আবারও নতুন করে দল গোছাতে হবে? মাশরাফি বিন মর্তুজা এতটা চিন্তিত হবার মতো কিছু দেখছেন না। বরং এই দলটির উপরই আস্থা আছে টাইগার অধিনায়কের।

ডানেডিনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডের আগে বিশ্বকাপ পরিকল্পনা নিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘আয়ারল্যান্ডে আমরা বিশ্বকাপের দল নিয়ে যাব, তাই সম্ভবত বিশ্বকাপের আগে এটা আমাদের শেষ ম্যাচ। আমার মনে হয় না, খুব বেশি পরিবর্তনের দরকার আছে। এই ছেলেরাই ভালো করার জন্য যথেষ্ট অভিজ্ঞ। হয়তো আমরা যেমন চেয়েছিলাম, তেমন হয়নি। তবে এখনও একটি ম্যাচ বাকি আছে। এখান থেকে কিছু আত্মবিশ্বাস নিয়ে আমরা আয়ারল্যান্ড আর বিশ্বকাপে যেতে চাই।’

টাইগার ওয়ানডে ক্যাপ্টেনের কথায় স্পষ্ট ইঙ্গিত, বিশ্বকাপের দলে নতুন কাউকে নিয়ে ভাবছেন না তিনি। দলের সাজানো ফরমেট ব্যর্থ হলেও তাদের উপরই আস্থা রেখে ইংল্যান্ডে পা রাখতে চান মাশরাফি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.