ব্রেকিং নিউজ

অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচেছেন তামিম-মুশফিকরা

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে জুমার নামাজে বন্দুকধারীদের হামলা থেকে অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছেন তামিম, মুশফিকসহ বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি ক্রিকেটার। সবাইকে নিরাপদে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ হামলার জেরে ক্রাইস্টচার্চ সিরিজের শেষ টেস্টটি বাতিল ঘোষণা করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

বাংলাদেশের জন্য নিউজিল্যান্ড সিরিজ হতাশার তো ছিলই, এখন তা আতঙ্কেরও হয়ে গেলো। শুক্রবার (১৫ মার্চ) সকালে বিভীষিকাময় এক ঘটনার সাক্ষী হলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় সময় শুক্রবার দুপুরে জুম্মার নামাজের আগে ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভালে এক অনির্ধারিত টিম মিটিং করে দলের সদস্যরা। সেখান থেকেই সরাসরি মসজিদে নামাজ আদায় করতে যাওয়ার কথা ছিল তামিম-মুশফিকদের। তবে মিটিংয়ে কিছুটা দেরি হয়ে যাওয়ায় নামাজ শুরুর কিছুক্ষণ পর সেখানে পৌঁছান তারা। আল নূর মসজিদে সেসময় আরও প্রায় ৩০০ মুসল্লি উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় হঠাৎই গুলির শব্দ শুনে সেখান থেকে দ্রুত চলে আসেন তারা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে পাওয়া এক ভিডিও থেকে দেখা যায়, ক্রিকেটার তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি ক্রীড়া সাংবাদিক সেখানে উপস্থিত ছিলেন। গুলির শব্দ শুনে দ্রুত সেই এলাকা থেকে সরে যেতে সক্ষম হন তারা। বাকি খেলোয়াড়দেরকেও নিরাপদে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

হোটেলে ফিরে নিজেদের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ঘটনার বিবরণ দেন তামিম ইকবাল এবং মুশফিকুর রহিম। এ সময় নিজেরা নিরাপদে আছেন জানিয়ে, সবার কাছে দোয়া চান তারা। পাশাপাশি বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা জানিয়ে টুইট করেছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড।

এদিকে, এ ঘটনার জেরে শনিবার ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ এবং নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার সিরিজের শেষ টেস্টটি বাতিল করেছে ব্ল্যাকক্যাপ ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, হাই-কমিশনসহ সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনা করেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে টুইটারে জানিয়েছে তারা।

এদিকে এঘটনার পরপরই অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশন এবং নিউজিল্যান্ডে অবস্থানরত বাংলাদেশি কনসালদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বাংলাদশ ক্রিকেট বোর্ড।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.