মির্জাপুরে চার নারী প্রার্থী নির্বাচনী মাঠে

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এক চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ চার নারী প্রার্থী নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় ব্যস্ত রয়েছেন। মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চার চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ দশজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে চারজনই রয়েছেন নারী প্রার্থী।

আগামী ৩১ মার্চ চতুর্থ ধাপে মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। চার চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ মোট দশজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে এক চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ চারজনই রয়েছেন নারী প্রার্থী। তারা হলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী আলোচিত স্বতন্ত্র প্রার্থী রুপা রায় চৌধুরী, নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রাথী শামীমা আক্তার শিফা, উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সাবেক নারী ভাইস চেয়ারম্যান সালমা সালাম উর্মী এবং উপজেলা মহিলা দলের সাবেক সভানেত্রী খালেদা সিদ্দিকী স্বপ্না।

চার নারী প্রার্থীর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী রুপা রায় চৌধুরীর আনারস প্রতীকের পোস্টার সাঁটানো দেখা গেলেও প্রচারণায় দেখা যায়নি। তবে তিনি গত জাতীয় নির্বাচনে প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের বাঘ মার্কায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে মাত্র ১৫৭ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে হাসির পাত্র হয়েছেন। উপজেলা নির্বাচনেও সেই অবস্থার পুণরাবৃত্তি ঘটবে বলে অনেকে মনে করছেন।

মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা।

অতিথি প্রার্থীর মতো প্রথমবার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে। দলের কারণেই মূলত তিনি গত নির্বাচনে জয়ী হন। নির্বাচনে জয়ী হবার পর শিফার সাধারণ মানুষের সাথে কোনো যোগাযোগ ছিল না। এমনকি উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগসহ সহযোগী সংগঠনের দলীয় নেতাদের কার কোন পদ এবং কোন এলাকার বিশেষ করে কার কি অবস্থান সেটিও তিনি জানেন না। পরিষদের সভা এবং বিভিন্ন দিবসের বিভিন্ন সভা ব্যতিত শিফা মির্জাপুরে থাকেন না বলে দলীয় নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদ কেন্দ্র থেকে উন্মুক্ত করে দেওয়ার পর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগ নেত্রী সালমা সালাম উর্মী। নির্বাচিত প্রতিনিধি না হয়েও দল এবং বিভিন্ন দিবসে সকল প্রকার সভা সমাবেশে নিয়মিত উপস্থিতি রয়েছে তার। পুরো মির্জাপুর উপজেলায় উর্মীর রয়েছে ব্যাপক পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা।

মহিলা দল নেত্রী খালেদা সিদ্দিকী স্বপ্না তৃতীয়বারের মতো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে এবার দলের হয়ে নয়, স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে তিনি নির্বাচনে লড়ছেন। স্বতন্ত্র প্রাথী হয়ে নির্বাচনে থাকার কারণে ইতোমধ্যে স্বপ্নাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ অবস্থায় তিনি নির্বাচনে কতটুকু সফল হবেন সেই প্রশ্ন এলাকার সাধারণ ভোটারদের।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.