ব্রেকিং নিউজ

টাঙ্গাইলে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে সঙ্গবদ্ধ ধর্ষণকারীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলে স্বামীকে আটকে রেখে পোশাক শ্রমিক স্ত্রীকে (২৫) সংঘবদ্ধ ধর্ষণকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে শহরের নিরালা মোড়ে শহীদ মিনারের সামনে টাঙ্গাইল সংগ্রহশালা, মোনালিসা উইমেন্স স্পোর্টস একাডেমি, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন, শিকড় ও টাঙ্গাইল সিটিজেন জার্নালিস্ট এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

মানববন্ধনে টাঙ্গাইল সংগ্রহশালার সচিব মির্জা মাসুদ রুবল, মোনালিসা উইমেন্স স্পোর্টস একাডেমি পরিচালক কামরুনাহার খান মুন্নি, শিক্ষক নেত্রী মরিয়ম মিলনসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও সচেতনমহল অংশ নেন। মানববন্ধনে বক্তারা ধর্ষণকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জানান।

প্রসঙ্গত, গত ১২ এপ্রিল রাতে ওই নারী স্বামীর সঙ্গে মির্জাপুরের কর্মস্থলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে কালিহাতীর এলেঙ্গা থেকে টাঙ্গাইল নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌঁছালে কয়েকজন যুবক তাদের পথ রোধ করে। পরে তার স্বামীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে উভয়কে নতুন বাসস্ট্যান্ডের নাভানা সিএনজি পাম্পের পেছনের জঙ্গলে নিয়ে যায়। সেখানে স্বামীকে আটকে রেখে ওই নারীকে তিনজনে মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এরপর শহরের আরও দুইটি স্থানে নিয়ে গিয়ে ফের সংঘবদ্ধভাবে বাকিরা মিলে তাকে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে নারীর স্বামী  ছুটে গিয়ে হাসপাতালের সামনে টহলরত পুলিশ সদস্যদের ঘটনাটি জানালে থানা পুলিশ ও টহল পুলিশ অভিযানে নেমে ওই নারীকে সাবালিয়ার চোরজানা এলাকার একটি পরিত্যক্ত ভবন থেকে তাকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ওই নারীর স্বামী বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামি করে টাঙ্গাইল সদর মডেল থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

এঘটনায় ওইদিন রাতে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে শহরের কোদালিয়ার আলম মিয়ার ছেলে ইউসুফ রানা (২৫), একই এলাকার রশিদের ছেলে রবিন (২৫), দেওলার আবুল হোসেনের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (২১), নাগরপুর উপজেলার ধুবরিয়ার মৃত মজনু মিয়ার মফিজ (২১), কোদালিয়ার রফিকুল ইসলামের ছেলে তানজীরুল ইসলাম তাসিন (২২), দেওলার আল বেরুনীর ছেলে ইব্রাহিম ইবনে আলবেরুনী (২০)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে এঘটনায় দেওলার হাসান সিকদার (২২) ও উজ্জল মিয়া (২৫)কে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.