টাঙ্গাইলে ধর্ষণের ফলে ১৩ বছরের শিশু ৯ মাসের গর্ভবতী; গ্রামছাড়া করার অভিযোগ

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের কালিহাতী পৌর এলাকায় ৯ মাসের গর্ভবতী সপ্তম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে গ্রামছাড়া করার অভিযোগ উঠেছে। প্রভাবশালী মহল সাড়ে ৪ লাখ টাকার বিনিময়ে এ কাজ করেছে বলেও জানা যায়।ঘটনাটি ঘটেছে কালিহাতী পৌরসভার উত্তর বেতডোবা এলাকায়।

স্থানীয়রা জানান, রনি পালের ছেলে মিঠু পাল (২২) ও নিতাই পালের ছেলে প্রশান্ত পাল (২১) একই এলাকার সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ফলে ১৩ বছরের শিশুটি ৯ মাসের গর্ভবতী হয়ে পড়েছে।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর মঙ্গলবার রাতে বিষয়টি মীমাংসার জন্য স্থানীয় কাউন্সিলর সাড়ে ৪ লাখ টাকার বিনিময়ে ওই গর্ভবতী সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রীকে গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র স্থানে রাখার সিদ্ধান্ত দেন।

স্থানীয়রা জানান, বাচ্চা নষ্ট করার জন্য এলাকা ছেড়ে অন্যত্র রাখা হয়েছে শিশুটিকে। গর্ভপাত করার সময় ওই শিশুটিরও কিছু হতে পারে বলে মনে করেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কালিহাতী পৌরসভার কাউন্সিলর অজয় কুমার লিটন দে বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি তবে মীমাংসার বিষয়ে জানিনা। সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য বলেন তিনি।

ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন অভিযুক্ত ষষ্টি পাল, মিঠু পাল, প্রশান্ত পাল। তাদের বাড়িতে পাওয়া যায়নি।

তবে ষষ্টি পালের স্ত্রী জানান, স্থানীয় মাতাব্বররা মীমাংসা করে দিয়েছে। এদিকে ৯ মাসের গর্ভবতী শিশুটিকে বাড়িতে গিয়ে পাওয়া যায়নি।

কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন বলেন, এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি।

কালিহাতী থানার ওসি তদন্ত নজরুল ইসলাম বিস্তারিত খোঁজ নিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.