ব্রেকিং নিউজ

টাঙ্গাইলে এএনবি-২ ইটভাটাকে ১লাখ টাকা জরিমানা,৩মাসের মধ্যে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের এএনবি-২ ইটভাটা সড়িয়ে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক। এছাড়া আবাসিক এলাকায় অনুমোদনহীন ইটভাটা স্থাপনের অপরাধে ভাটা মালিকে একলাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে ভ্রাম্যামান আদালতের বিচারক মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. মঈনূল হক আগামী তিন মাসের মধ্যে ওই এলাকা থেকে ইটভাটা সড়িয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন এবং জরিমানা আদায় করেন।

ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. মঈনুল হকের নেতৃত্বে টাঙ্গাইল জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন ও টাঙ্গাইল জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের একটি দল যৌথভাবে এ অভিযান পরিচালনা করেন।

এ সময় দুর্নীতি দমন কমিশন টাঙ্গাইল জেলার উপ-পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান, কোর্ট পরিদর্শক মো. বুলু মিয়া, এসি মো. সিরাজুল হক, টাঙ্গাইল জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মুহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম, পরিদর্শক সজীব কুমার ঘোষ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মির্জাপুর উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের বহুরিয়া পূর্বপাড়া এলাকার এএনবি-২ ইটভাটার বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রায় ২০ একর জমির ধান নষ্ট হয়। এছাড়া ভাটাসংলগ্ন এলাকায় গাছ থেকে ছোট ছোট আম ও লিচু ঝরে পড়ে গেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা । উপজেলার গোড়াই ইউনিয়নের সোহাগপাড়া গ্রামের আব্দুর রহিম ও তার আত্মীয় গাজীপুরের কড্ডা এলাকার রেজাউল করিম মিলে বহুরিয়া গ্রামের পূর্বপাড়ায় আবাদি জমি উপর এএনবি-২ নামে একটি ইটভাটা স্থাপন করেন। ভাটার তিন দিকে আবাদী জমি ও একপাশে নদী ঘেরা ওই এলাকায় ৭/৮ একর আবাদী জমি ভাড়া নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অনুমোদন ছাড়া ভাটাটি চালু করেন তারা।

এ নিয়ে বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকা,অনলাইন পত্রিকাসহ টেলিভিশনে সংবাদ প্রকাশিত হলে খবরটি প্রশাসনের নজরে আসে। পরে ভাটা মালিক কিছুসংক্ষক ক্ষতিগ্রস্থ কৃষককে ক্ষতিপরনের টাকাও দেন। সোমবার মির্জাপুর উপজেলা প্রশাসন, দুদক টাঙ্গাইল ও জেলা পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে যৌথভাবে ওই ভাটায় অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মঈনূল হক জানান, আবাসিক এলাকায় অনুমোদনবিহীন ইটভাটা স্থাপন করায় ওই আগামী তিন মাসের মধ্যে ইটভাটা সড়িয়ে নেয়ার নির্দেশ ও একলাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.