টাঙ্গাইলে মালিক সমিতির নামে প্রকাশ্য চাঁদাবাজি

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: সরকারী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যাত্রীবাহী বাস থামিয়ে ঢাকা-টাঙ্গাইল বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের রাবনা বাইপাস এলাকায় বাস-কোচ-মিনিবাস মালিক সমিতিরি নামে চলছে দিনে দুপুরে প্রকাশ্য চাঁদাবাজি। ফলে প্রতিদিনই লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে মালিক সমিতির কতিপয় নেতাকর্মী।

রোববার (২৬ মে) সকালে সরেজমিনে ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে রাবনা বাইপাস এলাকায় বাস-কোচ-মিনিবাস মালিক সমিতিরি নিয়োগকৃত ২ ব্যক্তি পর্যায়ক্রমে ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী যাত্রীবাহী বাস থামিয়ে প্রকাশ্যে করছে চাঁদাবাজি। পাশেই চেয়ার টেবিল নিয়ে বসে আছে কতিপয় নামধারী শ্রমিক নেতা। ওই ২ ব্যক্তি প্রতিটি যাত্রীবাহী বাস থেকে বিনা রশিদে ১’শ টাকা করে তুলে চেয়ার টেবিল নিয়ে বসে থাকা ওই শ্রমিক নেতাদের নিকট উত্তোলন কৃত টাকা জমা দিচ্ছে। এতে প্রতিদিনই শত শত যাত্রীবাহী বাস থামিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ টাকা।

টাকা উত্তোলনকারী এক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, আমরা যে টাকা উত্তোলন করি তা মালিক সমিতির আদেশক্রমেই করে থাকি। এটা আমাদের বলে কোন লাভ নেই, আপনারা মালিক সমিতির নেতাদের সাথে যোগাযোগ করেন।

বিষয়টি নিয়ে টাঙ্গাইল বাস-কোচ-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি খো. ইকবাল হোসেনকে জানালে, তিনি সংগঠনের মহাসচিবের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল বাস-কোচ-মিনিবাস মালিক সমিতির মহাসচিব গোলাম কিবরিয়া (বড় মনির) কে জানালে তিনি তাৎক্ষণিক ভাবে টাকা আদায়কারীদের মুঠোফোনে টাকা আদায় করতে নিষেধ করেন।

উল্লেখ্য সম্প্রতি ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের বিক্রমহাটী এলাকায় বালুর ট্রাক থেকে ২’শ টাকা করে চাঁদা আদায় করে আসছিল এক শ্রেণীর নেতাকর্মীরা। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় সচিত্র সংবাদ প্রকাশিত হলে স্থানীয় প্রশাসন ওই চাঁদাবাজি বন্ধ করে দিয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.