ব্রেকিং নিউজ

টাঙ্গাইলের ঘারিন্দা সোল পার্কে নিয়মিত চলছে অসামাজিক কার্যলাপ

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা সোল পার্কটি বিনোদনের জন্য তৈরি হলেও বর্তমানে অসামাজিক কার্যলাপের অভয়ারণ্য হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এখানে বিনোদনের আড়ালে দেধারছে চলছে নানান শ্রেণি ও বয়সের প্রেমিক-প্রেমিকাদের অসামাজিক কার্যকলাপ। এই পার্কে দীর্ঘদিন ধরে অবাধে টাঙ্গাইলের বিভিন্ন স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীসহ প্রেমিক-প্রেমিকারা অসামাজিক কর্মকা-ে লিপ্ত হচ্ছে। এতে করে সামাজিক নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়ছে বলে অভিমত প্রকাশ করেছেন সুশীল সমাজ।

বেশ কয়েকদিন সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পুরো এলাকাজুড়ে গাছের ছায়ায় অসংখ্য পাকা বেঞ্চ রয়েছে। আর এসব বেঞ্চের পাশে ঝোঁপ-ঝাঁড়ের আড়ালে কিশোর-কিশোরী, যুবক-যুবতী, স্কুল-কলেজ ছাত্র-ছাত্রী সহ নানান বয়সের প্রেমিক-প্রেমিকা অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এতে করে কিশোর-কিশোরী ও যুবক-যুবতীদের নৈতিক অবক্ষয় ঘটছে।

পার্কটি ঘুরে দেখা যায়, তরুণীরা একাধিক ছেলে নিয়ে সেখানে খোশগল্প আর গায়ে হাতাহাতি করেই সময় কাটিয়ে দিচ্ছে। এমনও চিত্র দেখা যায় যে, অনেক তরুণীদের চোখে মুখে লালচে আভা। এমনও দৃষ্টিতে পড়েছে তরুণীরা তাদের বুকের কাপড় পর্যন্ত মাটিতে বিছিয়ে রেখেছে। এর মধ্যে বসেই একে অপরের গলায় হাত রেখে, কারো ঠোঁট কারো ঠোঁটের উপর এ পরিস্থিতিতেই রয়েছে। এ পার্ক স্থাপিত হওয়ার পর থেকে এ এলাকার পরিবেশ নষ্ট হয়ে পড়েছে বলে এলাকাবাসী জানান।

বিশেষ করে এ পার্কের পাশেই ঘারিন্দা রেলওয়ে স্টেশন থাকায় সুধী সমাজের লোকজনরা যাতায়াতে বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে থাকেন। তারা আরো জানায়, বহিরাগত যুবক-যুবতীদের এহন কর্মকান্ড দেখে স্থানীয় যুবক-যুবতীরা খারাপ হচ্ছে। আরও জানান, এ বিষয়ে সোল পার্কের ভেতরের অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধ করতে প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে সোল পার্কের ম্যানেজার হারুন-অর-রশিদ বলেন, এর চেয়েও টাঙ্গাইলের অন্যান্য পার্কে বেশি অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে, সেগুলো আপনাদের নজরে আসে না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে করটিয়া সা’দৎ কলেজের এক সহকারী অধ্যাপক জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ সোল পার্কের বিষয়ে নানান কথা কানে আসছে। এটি অসামাজিক কার্যকলাপের অভয়ারণ্য হয়ে উঠেছে। এই প্রতিষ্ঠানের মালিকরা কি এতই শক্তিশালী যে প্রশাসন তাদের টিকিটি ছুঁতে পারে না? নাকি অন্য কিছু?

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল সদর ফাঁড়ির ইনচার্জ মোশারফ হোসেন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নাই অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

এবিষয়ে কথা বলার জন্য সোল পার্ক কর্তৃপক্ষের কাউকেই পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.