ব্রেকিং নিউজ

সখীপুরে ৫ম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় মসজিদের মুয়াজ্জিন গ্রেফতার

এম সাইফুল ইসলাম শাফলু: টাঙ্গাইলের সখীপুরে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার মামলায় রুহুল আমিন (৩৫) নামের এক মসজিদের মুয়াজ্জিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার বড়কা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শুক্রবার রুহুল আমিনকে টাঙ্গাইল আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে ওই ছাত্রীর মা গত সোমবার সখীপুর থানায় ওই মুয়াজ্জিনকে একমাত্র আসামি করে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা করেন। গ্রেফতারকৃত রুহুল আমিন একবছর ধরে সখীপুর উপজেলার কুতুবপুর বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন পদে চাকরি করতো । ওই ঘটনার পর থেকে সে পালিয়ে যায়।

পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুতুপুর গ্রামের ৫ম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীর মাথা ব্যাথা রোগ সারাতে ঝাড়-ফুক দিতে ছাত্রীর বাড়িতে যায় মসজিদের মুয়াজ্জিন রুহুল আমিন। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রীকে জ্বিনে ধরেছে বলে জানায় সে। পরে জ্বিন ছাড়াতে বাটিতে সরিষার তেল নিয়ে ওই মুয়াজ্জিন ছাত্রীকে একা একটি ঘরে নিয়ে চোখে সরিষার তেল লাগিয়ে দেয়।

যার ফুকের এক পর্যায়ে ছাত্রীর কাপড়-চোপড় খুলে ধর্ষণের চেষ্টা করলে সে চিৎকার করে ওঠে। চিৎকার শুনে বাড়ির লোকজন মুয়াজ্জিনকে আটক করে গণধোলাই দেয়। পরে এ বিষয়ে শালিশ করা হবে বলে তাকে স্থানীয় মাতাব্বররা ছেড়ে দেয়। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা গত সোমবার সখীপুর থানায় ওই মুয়াজ্জিনকে একমাত্র আসামি করে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা করলে বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ মুয়াজ্জিন রুহল আমীনকে গ্রেফতার করে।

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ওসি (তদন্ত) এএইচএম লুৎফুল কবির বলেন, ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় রুহুল আমিনকে গ্রেফতার করে শুক্রবার সকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.