ব্রেকিং নিউজ

 দু’এক দিনের মধ্যেই যানবাহন চলাচল শুরু হবে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কে

ভূঞাপুর প্রতিনিধি: যমুনা নদীর বন্যার পানিতে ভেঙে যাওয়া টাঙ্গাইল-ভূঞাপুর-তারাকান্দি আঞ্চলিক সড়কের ভূঞাপুর উপজেলার টেপিবাড়ী (মলাদহ) নামক এলাকার ভাঙন স্থান পরিদর্শন করেছেন মেজর জেনারেল মো: মিজানুর রহমান শামীম (বিপি.পিএফসি)। এসময় তার সাথে ছিলেন, বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. হাসান উজ-জামান ( এএফডব্লিউসি, পিএসসি)।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) সকাল ১০টার সময় এ পরিদর্শনে আসেন তারা।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্য উপস্থিত ছিলেন, ভাঙন মেরামতের ক্যাম্প পরিচালক লেফটেন্যান্ট আবরার শাহরিয়ার খান, ভূঞাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও পৌর মেয়র মো: মাসুদুল হক মাসুদ, সাংবাদিক আব্দুল লতিফ তালুকদার, ফরমান শেখ, পৌর কাউন্সিলর মো. রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। এ ছাড়াও সেনাবাহিনী, পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

সড়ক পরিদর্শনকালে মো. মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, সেনাবাহিনীর সদস্যরা ভাঙনের শুরু থেকেই নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি আগামী দু’এক দিনের মধ্যেই ভূঞাপুর-তারাকান্দি আঞ্চলিক সড়কটি মেরামত কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে। এর পর সড়কটি যাতায়াতের জন্য উন্মুক্ত করা হবে। এর আগে তিনি ভোর সকালে তাড়াই বাঁধের রাস্তাটি পরিদর্শন করেন এবং ওই রাস্তাটি কাজ সম্পূর্ণ করা হয়েছে। সেই সাথে কাজে সহযোগিতা করায় তিনি প্রশাসন, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, সাংবাদিক ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ গ্রামবাসীদের ধন্যবাদ জানান।

প্রসঙ্গত প্রকাশ, গত বুধবার (১৭ জুলাই) রাত ১২ টার দিকে এই ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কের পাশের তাড়াই গ্রামের রাস্তা ও পরের দিন বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দুপুরের দিকে টেপিবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠের পাড় ভেঙে গিয়ে ১০ টি গ্রাম বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়। এরপর একইদিনে কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে টেপিবাড়ী এলাকার বৃহস্পতিবার রাত ৮ টার দিকে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক ভেঙে গিয়ে সব ধরণের যান চলাচল বন্ধ ও যোগযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ সড়ক ভাঙনের ফলে দ্রুত সময়ে কয়েকটি উপজেলার প্রায় কয়েক’শ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.