ব্রেকিং নিউজ

দুই বছর পর মাকে ফিরে পেলো টাঙ্গাইলে উদ্ধার হওয়া জুলি

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: হারিয়ে যাওয়ার প্রায় দুই বছর পর মাকে ফিরে পেলো মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরী জুলি।

জানা যায়, কারা হেফাজতে চিকিৎসার পর জুলি কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠলে গত ১০ জুলাই টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল ইসলামের আদালতে জুলি তার মা-বাবা, বোনের নাম এবং বাড়ি জামালপুর ও তার স্কুলের নামটি জানায়।

তখন বিচারক জুলির জানানো ওই ঠিকানার সূত্র ধরে টাঙ্গাইল ও জামালপুরের সমাজসেবা কর্মকর্তা, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা এবং টাঙ্গাইলের জেল সুপারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ দেন। এরপর তারা জুলির পরিবারকে খুঁজে বের করে তাদের হাতে তুলে দেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০১৭ সালের ১৫ অক্টোবর টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলায় মানসিক প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। তখন সে নিজের নামও বলতে পারেনি। পরে পুলিশ একটি সাধারণ ডায়েরি করে তাকে আদালতে পাঠায়। আদালত তাকে নিরাপত্তা হেফাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

কারাগার সূত্র জানায়, মানসিক রোগী হওয়ায় মেয়েটিকে কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়। সেখানে তার চিকিৎসা দেওয়া হয়। চিকিৎসা পেয়ে কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর আবার তাকে টাঙ্গাইলে আনা হয়। গত ১০ জুলাই তাকে টাঙ্গাইল বিচারিক হাকিম আদালতে হাজির করা হলে সে আদালতে জানায়, তার নাম জুলি। মায়ের নাম মরিয়ম, বাবার নাম শাহীন, জামালপুরের ইকবালপুর এলাকায় তার বাড়ি। হাজীপুর বটতলায় নেওয়া হলে সে তার বাড়ি চিনতে পারবে। সে হাসানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেছেও বলে জানায়। জুলির দেওয়া সেই তথ্য অনুযায়ী বিচারক তাকে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার আদেশ দেন।

জুলির মায়ের কাছে টাঙ্গাইল সমাজসেবা বিভাগের প্রবেশন কর্মকর্তা আব্দুল মোতালেব মিয়া জানতে পারেন, মানসিক রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর জুলিকে তার মা ময়মনসিংহে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। সেখান থেকে প্রায় দুই বছর আগে সে হারিয়ে যায়।

আব্দুল মোতালেব মিয়া বলেন, গত শনিবার জুলির মা হোসনে জান্নাত মরিয়ম, বোন মারিয়া এবং তাদের এক মামা টাঙ্গাইলে এসে জুলিকে নিয়ে যান। দীর্ঘদিন পর পরিবারের সদস্যদের দেখা পেয়ে জুলি কান্নায় ভেঙে পড়ে। পরে জুলির পরিবারের সদস্যরা বিচারক, কারা কর্তৃপক্ষসহ জুলিকে খুঁজে পাওয়ার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

#বাংলা নিউজ ২৪

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.