ব্রেকিং নিউজ

কৃষিমন্ত্রীর দুঃখ প্রকাশ !

নিজস্ব প্রতিনিধি : কৃষকদের উৎপাদিত ধানের নায্যমুল্য দিতে না পারায় অবশেষে দুঃখ প্রকাশ করলেন কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, আগামী বছর থেকে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করবে সরকার। সোমবার টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক ভাঙন পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ড.আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বন্যায় কৃষিখাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতি কাটিয়ে নিতে কৃষকদের মাঝে কৃষি উপকরণ বিতরণ করা হবে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থরা যে পর্যন্ত ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে না পারবেন ততদিন পর্যন্ত তাদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, বেগম জিয়া এতিমের টাকা চুরি ও আত্মস্যাত করায় আদালত তাকে সাজা দিয়েছে। তাকে যদি জেল থেকে বের হতেই হয় তাহলে উচ্চ আদালত থেকে তাকে জামিনে মুক্ত হতে হবে। আন্দোলন করে বিএনপি অতীতেও সফল হয়নি এবার হবে না। বেগম জিয়া যদি সত্যিকার অর্থে অসুস্থ হোন তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শে প্যারোলের মুক্তির বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

তিনি বলেন, ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্থ স্কুল-কলেজ রাস্তা-ঘাট দ্রুত সময়ের মধ্যে মেরামত করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ দিতে এসেছি। বাংলাদেশে একটি চক্র গুজব ছড়াচ্ছে। এর আগেও সাঈদীকে চাঁদে দেখা যাচ্ছে এমন গুজব ছড়িয়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করেছে। গুজবে কেউ কান দিবেন না। ভূঞাপুরে যমুনার চরা লে ৩-৪ হাজার কোটি টাকা ব্যায়ে অর্থনৈতিক যোন নির্মাণ করা হবে। এতে করে এই অ লের কেউ আর বেকার থাকবে না।

পরে কৃষিমন্ত্রী টেপিবাড়ি ভাঙন পরিদর্শন শেষে উপজেলার গাবসারা, নিকরাইল ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকায় বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সাংসদ ছোট মনির, জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, টাঙ্গাইল পৌর মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম অ্যাডভোকেট, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঝোটন চন্দ, ভূঞাপুর পৌর মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ প্রমুখ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.