ব্রেকিং নিউজ

ঈদের আনন্দ নেই টাঙ্গাইলের মিনু মিয়ার পরিবারে

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: সবার মাঝেই ঈদের আনন্দ। শুধু আনন্দ নেই টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের ভ্যান চালক মিনু মিয়ার পরিবারে।

বন্যায় সড়ক ডুবে যাওয়ায় ভ্যান চালাতে পারছিলেন না মিনু মিয়া। পাঁচ বছরের ছেলে ও অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মুখে খাবার তুলে দিতে মাছ বিক্রির সিন্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। ২১ জুলাই কালিহাতীর শয়া হাটে জাল কিনতে যাওয়ার সময় ছেলেধরা গুজবে গণপিটুনিতে আহত হন মিনু মিয়া। ২৯ জুলাই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয় তার।

বাবা আর ফিরবে না এখনো জানে না মিনু মিয়ার ছেলে রাহাত। এখনো অপলক চোখে তাকিয়ে থাকে কখন বাবা তার জন্য ঈদের নতুন জামা নিয়ে আসবে।

ভূঞাপুরের টেপিবাড়ি গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, বাড়ি, উঠান, মিনু মিয়ার ভ্যান আগের মতোই আছে। শুধু মিনু মিয়া নেই। তার শূন্যতা ঘিরে রেখেছে স্ত্রী-সন্তানসহ পুরো পরিবারকে।

মিনু মিয়ার স্ত্রী বলেন, আমার স্বামী সরল মানুষ ছিলেন। কারো সঙ্গে দ্বন্দ্বে জোড়াতেন না। তার অল্প আয়ে আমাদের সংসার ভালোই চলতো। কষ্ট হলেও ঈদে ছেলেকে নতুন জামা কিনে দিতেন, ঘুরতে নিয়ে যেতেন। এখন তো সংসার চালানোর উপায়ই নেই, ঈদে আনন্দ করবো কিভাবে? আমার অনাগত সন্তানও তার বাবাকে দেখতে পাবে না।

ভূঞাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল হালিম বলেন, মিনু মিয়ার মৃত্যু অনাকাঙ্ক্ষিত। এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত শাস্তির আওতায় আনা হবে।

জেলা মানবাধিকার সংস্থা’র সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আজাদ বলেন, মিনু মিয়ার মৃত্যুতে তার পরিবার নিঃস্ব হয়ে গেছে। বিত্তবানদের উচিত তার পরিবারের দায়িত্ব নেয়া।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.