ব্রেকিং নিউজ

টাঙ্গাইলে হাত দিয়েই উঠানো যাচ্ছে রাস্তার কার্পেটিং

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের বাসাইলে করটিয়া-জশিহাটী ভায়া দেউলী সড়কে রিপেয়ারিং কাজে অনিয়মের অভিযোগে এনে এলাকাবাসী কার্পেটিং উঠিয়ে প্রতিবাদ করেছেন। সম্প্রতি স্থানীয়রা এ সড়কের প্রায় ১০ফিট জায়গার কার্পেটিং উঠিয়ে প্রতিবাদ জানান। মুহুর্তের মধ্যেই বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোড়ণ সৃষ্টি হয়। তোপের মুখে পড়েন এলজিইডি কর্তৃপক্ষ ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কর্তারা।

জানা যায়, করটিয়া-জশিহাটী ভায়া দেউলী সড়কটিতে দীর্ঘদিন যাবৎ কার্পেটিং উঠে বিভিন্নস্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল এ সড়কে যাতায়াতরত সাধারণ মানুষের। দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর দুই কিলো ৮শ’ মিটার কাজ আসে এই সড়কের।

আইআরআইডিপি-২ এর আওতায় প্রকল্পটি উপজেলা এলজিইডির মাধ্যমে কাজটি পায় টাঙ্গাইলের মেসার্স হিরো এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। গত আগস্ট মাসের শেষের দিকে কার্পেটিং-এর কাজ শুরু হলে স্থানীয়দের মাঝে কাজের অনিয়মের বিষয়টি নজরে আসে। পরে স্থানীয়রা দাপনাজোর এলাকায় গত ৩১ আগস্ট বিকালে প্রায় ১০ ফিট জায়গায় কার্পেটিং উঠিয়ে প্রতিবাদ জানান। পরে খবর পেয়ে উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী সড়কটি পরিদর্শন করেন।

সরেজমিনে গেলে স্থানীয় লিকসন হাসান, শরিফুল ইসলাম, সোহেল, আব্দুল মান্নান, পলাশসহ বেশ কয়েকজনে জানান, দীর্ঘদিন পর সড়কটি মেরামতের কাজ এসেছে। সড়কটিতে নিম্নমানের ইট, খোয়া ও বালুর পরিবর্তে ধুলাবালি ব্যবহার করা হচ্ছে। এছাড়াও ধুলাবালি মিশ্রিত সিক্স মিলি পাথর ব্যবহার করা হচ্ছে। সড়কটি পরিস্কার না করেই কার্পেটিং করা হচ্ছে। ফলে কাজটি চলমান থাকা অবস্থাতেই সড়কের বিভিন্ন জায়গায় কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। পরে এলাকাবাসী কার্পেটিং হাত দিয়ে উঠানোর চেষ্টা করলে তা উঠে আসছে।

এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হলে তারা বেশ কিছু জায়গার কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলেন। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ও দীর্ঘ দিনের প্রতিক্ষার ফল সড়কটির কাজ সঠিকভাবে সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের তদারকি করার অনুরোধ জানান এলাকাবাসী।

মেসার্স হিরো এন্টারপ্রাইজের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার হিরো বলেন, ‘ওইদিন বৃষ্টি থাকার কারণে সড়কের অল্প কিছু জায়গায় কাজের ফিনিসিং দিতে পারিনি। এরপরই মেশিন নষ্ট হয়ে যায়। পরে ওই জায়গায় এলাকাবাসী কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলেন। সড়কের অন্যান্য জায়গায় কাজের কোনও অনিয়ম হয়নি। সঠিক উপকরণ দিয়েই কাজটি করা হচ্ছে।’

উপজেলা প্রকৌশলী রোজদিদ আহম্মেদ বলেন, ‘করটিয়া-জশিহাটী ভায়া দেউলী সড়কের দুই কিলো ৮শ’ মিটার পর্যন্ত কাজ চলছে। এই কাজের ব্যয় ধরা হয়েছে এক কোটি এক লাখ টাকা। এ পর্যন্ত প্রায় ৭শ’ মিটার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে দাপনাজোর এলাকায় এলাকাবাসী কাজের অনিয়মের অভিযোগ এনে ৫ থেকে ৭ফিট জায়গার কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলেছেন। পরে খবর পেয়ে সড়কটি পরিদর্শন করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা হয়েছে। সিক্স মিলি পাথর পরিবর্তন করে নতুন করে পাথর এনে কাজ করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দেয়া হয়েছে। এঘটনায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানান এই প্রকৌশলী।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামছুন নাহার স্বপ্না বলেন, ‘সড়কে এলাকাবাসীর কার্পেটিং উঠানোর খবর পেয়ে আমি সড়কটি পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। বর্তমানে কাজটি বন্ধ রয়েছে। নতুন করে উপকরণ এনে আবার কাজটি শুরু করার জন্য বলা হয়েছে। কাজ শুরু হলে এলজিইডি প্রকৌশলী সার্বক্ষণিক তদারকি করবেন।’

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.