ব্রেকিং নিউজ

মির্জাপুরে ভূমি দস্যু, সন্ত্রাসী জুয়েল ও ধলা গংদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন, প্রতিবাদ সমাবেশ

মির্জাপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ভূমি দস্যু, চাঁদাবাজ, খুনি, সন্ত্রাসী জুয়েল ও ধলা গংদের গ্রেপ্তার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ভুক্তভোগী পুষ্টকামুরী ও আশপাশের এলাকাবাসীর আয়োজনে বিশাল মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১১ জানুয়ারি) সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার পৌর সদরের কলেজ রোডে এ মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়। ২ শতাধিক নারী ও প্রায় ৩ শতাধিক পুরুষের উপস্থিতিতে ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধনের পর অনুষ্ঠিত সমাবেশে ভূমি দস্যু, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ জুয়েল ও ধলা গংদের জুলুম অত্যাচারের কথা তুলে ধরেন ভুক্তভোগীরা। সংশ্লিষ্ট প্রশাসন তাদের অতিদ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনবেন এটিই তাদের দাবি।

সমাবেশে পৌর সদরের পোষ্টকামুরী গ্রামের ভুক্তভোগী বীর মুক্তিযোদ্ধা লাল মিয়া বলেন, জুয়েল, ধলা গ্যাংরা আমাগো সব জাগা-জমি দখল কইরা নিয়া গেছে গা। দখল নিয়া ওরা ভূয়া কাগজ-পাতি/ দলিল বানিয়া জাগা বিক্রি করে। এদের অতি দ্রুত গ্রেপ্তার করে শাস্তি দাবি করেন তিনি।

অত্যাচারের শিকার গোলাম মোস্তফা সিকদার অভিযোগ করে বলেন, আমার চাচাত ভাই আমাদের জমি জোর দখল কইরা খাইতাছে। আমার চাচা আব্দুল আজিজ ধলা নির্যাতন করে আমাদের বাড়ি থেকে বের করে দিছে। আমরা বউ পুলাপান নিয়া রাস্তায় আছি আমাগো থাকার মতো কোনো জায়গা নাই, আমরা প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচার চাই।

ভুক্তভোগী পোষ্টকামুরী গ্রামের আলফা ও রশিদা বেগম অভিযোগ করে বলেন, ওরা সন্ত্রাসী ওরা চাঁদাবাজ ওরা গরীবের হক মাইরা খায়। দশজনে জানে আমরা ওগো নগে পারিনা, আমাগো জমি জোর দখল কইরা নিয়া গেছেগা, আমরা আমাগো জমি চাই ফিরিয়া, আমরা বিচার চাই।

অপহরণের শিকার পোষ্টকামুরী গ্রামের আজাহার সিকদারের ছেলে জামিল সিকদার অভিযোগ করে বলেন, গত ২৯ তারিখ রাত ৯ টার দিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে আমাকে বাসা থেকে অপহরণ করে জুয়েল, ধলা গং। পরে তারা আমার পরিবারের কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে, পরে আমার পরিবার তাদের কাছে ১৫ হাজার টাকা দিলে আমাকে বাড়ির সামনে রাস্তার উপরে ফেলে দিয়ে চলে যায়। এরপরও বিভিন্নভাবে আমাকে এবং আমার পরিবারের সদস্যদের হুমকি দিয়ে আসছে। আমি এর বিচার চাই।

ভুক্তভোগী পোষ্টকামুরী গ্রামের আজাহার সিকদার বলেন, জুয়েল ও ধলা গং আমাকে দিনের পর দিন বিভিন্নভাবে মেরে ফেলবে এমন হুমকি দিয়ে আসছে। জুয়েল ও ধলা গত ২৯ তারিখ তার ছেলেকে অপহরণও করে বলে উল্লেখ করেন। সবমিলিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশে উপস্থিত সকলেই জুয়েল ও ধলা গংদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্ত শাস্তি দাবি করেন।

উল্লেখ্য দীর্ঘদিন যাবৎ জুয়েল ও ধলা গং এলাকার মানুষদের জায়গা জমি দখল করে লুটেপুটে খেয়ে আসছে। প্রভাবশালী থাকায় তাদের কেউ কিছু বলতে পারেনা। এই জুয়েল ও ধলা গংদের বিরুদ্ধে সদরের ডাক বাংলোরের রাস্তার সরকারি জমি আত্মসাৎেরও অভিযোগ রয়েছে। তাদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হলে অসহায় মানুষেরা ফিরে পেতে পারে তাদের জমি। এখন দেখার বাকি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টিকে কতটুকু গুরুত্ব দিয়ে সত্যতা যাচাই করে এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।